বিএনপিকে ঘায়েল করতেই জঙ্গিবাদকে ব্যবহার করছে সরকার: মির্জা আলমগীর – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিএনপিকে ঘায়েল করতেই জঙ্গিবাদকে ব্যবহার করছে সরকার: মির্জা আলমগীর

প্রকাশিত: ২:৫৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৭

বিএনপিকে ঘায়েল করতেই জঙ্গিবাদকে ব্যবহার করছে সরকার: মির্জা আলমগীর

স্বাধীনতা দিবসে বিএনপির কর্মসূচি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: জঙ্গিবাদকে সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে বিএনপিকে ঘায়েল করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, সরকার জঙ্গিবাদ নিয়ে যে রহস্যময় খেলা খেলছে তার আসল রহস্য হচ্ছে দেশে ঘরোয়া জঙ্গিদের কথা বলে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করে তাদেরকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দেয়া। প্রত্যেকবারই তারা এভাবে জঙ্গিবাদের ধোঁয়া তোলে। তারপরে দেখবেন বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের ধরে নিয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টন ভাসানি মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর বিএনপি আয়োজিতি এক সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

‘২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বিএনপির র‌্যালি কর্মসূচি বাস্তাবয়নের লক্ষ্যে প্রস্তুতি’ এ সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আপনারা আগুন নিয়ে খেলছেন। আজকে তাকিয়ে দেখেন সিরিয়ার দিকে লক্ষ লক্ষ মানুষকে প্রাণ দিতে হয়েছে। এ জন্য আমি অত্যন্ত ভিত এবং উদ্বিগ্ন। কোন দিকে সরকার আমাদের নিয়ে যাচ্ছে। আমি স্পষ্ট ভাবে জানতে চাই আপনাদের আসল লক্ষটা কি? প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, যদি জঙ্গিবাদ নির্মূল করতে চান তাহলে অবশ্যই সকল রাজনৈতিক দলগুলোকে সাথে নিয়ে সত্যিকার অর্থেই প্রকৃত তথ্য উৎঘাটন করেন। জঙ্গিবাদ নিয়ে র‌্যাব এবং পুলিশের আইজির কথার কোনো মিল নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আশকোনায় যাকে জঙ্গি বলে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে, সেই হত্যার তথ্যের সাথে পুলিশ ও র‌্যাবের বর্ণনার সাথে কোনো মিল- বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, জঙ্গি বলে আপনারা যাদেরকে ধরেন তাদেরকেই ক্রসফায়ার করে মেরে ফেলেন। আমাদের দাবি, তাদের ধরেন। তদন্ত করেন। ঘটনার প্রকৃত তথ্য বের হয়ে আসুক। কারা মদত দিচ্ছে, কারা করছে। আমরা চাই, একই সাথে পুরো জাতি চায় জঙ্গিবাদকে নির্মূল করা হোক। কিন্তু আপনারা সেটা করছেন না আর করবেনও না।

বিএনপির মহাসিচব বলেন, কয়েকদিন পর পর বলে, জঙ্গিবাদ নির্মূল হয়ে গেছে। তাহলে জঙ্গিবাদ বাড়ছে কেন? তাহলে এই ঘটনা ঘটছে কেন?

ভারতের সাথে বাংলাদেশের চুক্তি নিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ভারতের সাথে তিস্তার পানির চুক্তি যে হবে না এটা পানি মন্ত্রীর কথায় স্পষ্ট হয়েছে। তবে কোন চুক্তি হবে। যে চুক্তি আমাদের স্বাধীনতা বিরোধী, অর্থনীতি ধ্বংস হবে, নিজেদের দাসত্বে পরিণত করবে এমন চুক্তি। দেশে স্বার্থ বিরোধী কোনো চুক্তি এদেশের মানুষ মেনে নিবে না।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস স্বাধীনতা দিবসে বিএনপির কর্মসূচি ঘোষণা করে বলেন, মহানগরের প্রতিটি ওয়ার্ড এবং থানা থেকে নেতারা দুপুর ২ টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কারযালয়ে উপস্থিত হবে। কারযালয়ের সামনে থেকে প্রেস ক্লাবের অভিমুখে শান্তিপূর্ণ মিছিল করা হবে বলে জানান তিনি। তবে মিছিলের পথ পরবর্তীতে পরিবর্তনও হতে পারে বলেও জানান তিনি।

মির্জা আব্বাসের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুল আউয়াল মিন্টু, আব্দুস সালাম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল