‘বিচার বিভাগ শেষ’, কূটনীতিকদের বললো বিএনপি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

‘বিচার বিভাগ শেষ’, কূটনীতিকদের বললো বিএনপি

প্রকাশিত: ১:১৮ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০১৭

‘বিচার বিভাগ শেষ’, কূটনীতিকদের বললো বিএনপি

‘ষোড়শ সংশোধনীর রায়কে কেন্দ্র করে প্রধান বিচারপতিকে জোর করে বিদেশ পাঠানোর ঘটনার মধ্য দিয়ে বিচার বিভাগ শেষ হয়ে গেছে’, বলে কূটনীতিকদের জানিয়েছে বিএনপি। বুধবার দুই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে বিদেশি কূটনীতিকদের কাছে দেশের বিচার বিভাগের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে এই অভিযোগ করেছে দলটি। বৈঠকে অংশ নেওয়া একাধিক বিএনপি নেতা বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বর্তমান বিচার বিভাগের যে সংকট তার মধ্য দিয়ে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা শেষ হয়ে গেছে। যে ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখার কথা এতদিন বলতাম, সেগুলো আর বলবো না। সরকার এই ভাবমূর্তি শেষ করে দিয়েছেন। আমরা বর্তমান অবস্থা তাদের (কূটনীতিকদের) জানিয়েছি।’
বিএনপির অভিযোগের প্রেক্ষিতে কূটনীতিকদের প্রতিক্রিয়ার বিষয়ে মওদুদ আহমদ জানান, ‘এ বিষয়ে দলের মহাসচিব ব্রিফ করবেন।’
রাজধানীর হোটেল লেকশোরে বিকাল ৪টায় এই বৈঠক শুরু হয়ে শেষ হয় সন্ধ্যা ৬টার দিকে। বৈঠকে ২০টি দেশের কূটনীতিক ও কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

সূত্র জানায়, প্রধান বিচারপতিকে কেন্দ্র করে বিচার বিভাগের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে ব্রিফ করা হয় বিএনপির পক্ষ থেকে। প্রতিক্রিয়ায় কূটনীতিকদের অনেকেই এ সম্পর্কে কথা বলেছেন।

বৈঠকে অংশ নেওয়া সূত্রের দাবি, কয়েকজন কূটনীতিক একটি রায়কে কেন্দ্র করে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সরকারের আচরণের বিষয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।

স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য দাবি করে বলেন, ‘কূটনীতিকরা উদগ্রীব, সকলেই আমাদের কথা শুনেছেন। তারা বিচলিত। রায় দেওয়ার কারণে দেশের প্রধান বিচারপতিকে ঘরে বন্দি করে রাখা, এটা তো তারা বিশ্বাসই করতে পারছেন না।’

বৈঠকে অংশ নেওয়া একাধিক সূত্র জানায়, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ কূটনীতিকদের আইন অঙ্গনের পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফ করেন। তার বক্তব্যে প্রধান বিচারপতিকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি, ছুটি সংক্রান্ত বিতর্ক, তার সিগনেচারসহ ইত্যাদি বিষয়ে ফলোআপ করেন। বক্তব্যের শুরুতেই কূটনীতিকদের হাতে একটি লিখিত বক্তব্যের কপি তুলে দেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, বৈঠকে প্রায় ২০টি দেশের প্রতিনিধি ও আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা ছিলেন। আন্তর্জাতিক সংগঠন দু’টো হচ্ছে, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ও ইউএস এইড। বিদেশি রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ঢাকায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, চীন, ভারত, তুরস্ক, ইন্দোনেশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, ইউরোপিয় ইউনিয়ন, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, মরক্কোসহ কয়েকটি দেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বিএনপির প্রতিনিধি দলে ছিলেন- দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, রিয়াজ রহমান, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও ব্যারিস্টার নওশাদ জমির।

বৈঠক শেষে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেশে ক্রাইসিস চলছে প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে, সেপারেসন অব জুডিশিয়ারি নিয়ে। একটা রায়কে কেন্দ্র করে এমন ক্রাইসিস, বাংলাদেশের বিচার বিভাগকে সরকারের ডিফেন্ড করার কথা কিন্তু সরকারই বিচার বিভাগকে আক্রমণ করছে। দেশে তো বিচার বিভাগের স্বাধীনতা বলে আর কিছু থাকল না।’