বিছনাকান্দিতে অভিযান: কোটি টাকার বোমামেশিন ধ্বংস – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিছনাকান্দিতে অভিযান: কোটি টাকার বোমামেশিন ধ্বংস

প্রকাশিত: ৯:৪৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৪, ২০১৬

বিছনাকান্দিতে অভিযান: কোটি টাকার বোমামেশিন ধ্বংস

companigonjer Boma mtionসিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পর্যটনকেন্দ্র বিছনাকান্দিতে বোমামেশিনবিরোধী টাস্কফোর্স অভিযান চালিয়ে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন চারটি বোমামেশিন পুড়িয়ে ধ্বংস করেছে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ অভিযান পরিচালনার বিষয়টি গতকাল বুধবার সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর।
পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ‘বোমামেশিন এখন বিছনাকান্দিতেও’ শিরোনামে গত ৩০ জুলাই আমাদের পত্রিকায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। এরপর মঙ্গলবার বিকেলে গোয়াইনঘাট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশরাফ আহমদ রাসেলের নেতৃত্বে পরিবেশ অধিদপ্তর ও উপজেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে গঠিত টাস্কফোর্স সরেজমিন পরিদর্শন করে। বিকেল পাঁচটা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা পর্যন্ত দেড় ঘণ্টাব্যাপী অভিযানে ১২ সিলিন্ডার ক্ষমতার চারটি বোমামেশিন জব্দ করা হয়। পরে এগুলো পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।
টাস্কফোর্সের অভিযানে পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রতিনিধিত্বকারী পরিদর্শক পারভেজ আহম্মেদ জানান, ধ্বংস করা চারটি বোমামেশিনই উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন। এগুলোর একেকটির বাজার দর ২৬ থেকে ২৮ লাখ টাকা। এ হিসাবে প্রায় এক কোটি টাকার বোমামেশিন ধ্বংস করা হয়েছে।
বোমামেশিন মূলত পাওয়ার পাম্প ও পাইপ দিয়ে তৈরি একটি যন্ত্র। এটি চালালে বোমা বিস্ফোরণের মতো বিকট শব্দ হয়। এ যন্ত্রের সাহায্যে মাটির প্রায় ৫০ থেকে ৬০ ফুট গভীর থেকে পাথর উত্তোলন করা সম্ভব। সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ ও গোয়াইনঘাটের জাফলং পাথর কোয়ারিতে এ যন্ত্র দিয়ে পাথর উত্তোলনের কারণে ভূগর্ভস্থ মাটির স্তর পরিবর্তন হয়ে ভূপ্রকৃতি ও পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছিল। এ প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা) ২০০৯ সালে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করলে বোমামেশিন ব্যবহার নিষিদ্ধ করেন আদালত। সেই সঙ্গে বোমামেশিনের ব্যবহার বন্ধে পরিবেশ অধিদপ্তরসহ স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় টাস্কফোর্স গঠন করা হয়।
গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছনাকান্দির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অপরূপ। এখানকার স্বচ্ছ পানিতে ছায়া পড়ে পাহাড়ের। শান্ত নিরিবিলি পরিবেশ। এ জন্য সহজেই পর্যটকদের দৃষ্টি কাড়ে। বিছনাকান্দির সঙ্গে যুক্ত হওয়া পিয়াইন নদের তীরে অন্তত সাতটি স্থানে বোমামেশিন স্থাপন করে পাথর উত্তোলনের প্রস্তুতিতে ওই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল