বিদায় বলে দিলেন ডেভিড ভিয়া – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিদায় বলে দিলেন ডেভিড ভিয়া

প্রকাশিত: ৪:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯

বিদায় বলে দিলেন ডেভিড ভিয়া

খেলা ডেস্ক ;

বেশ ক’বছর ধরেই পাদপ্রদীপের আড়ালে ছিলেন ডেভিড ভিয়া। আর হবেন না-ই বা কেন। আগের সেই ক্ষুরধার ফর্মও নেই। ইউরোপের কোনো ক্লাবে জায়গা না পেয়ে অবশেষে পাড়ি জমিয়েছিলেন জাপানে। বার্সেলোনা ও ভ্যালেন্সিয়ার হয়ে নাম কুড়ানো এই স্ট্রাইকার হালে খেলছিলেন নিউ ইয়র্ক সিটি এফসি ও জাপানের ভিসেল কোবের মতো ক্লাবগুলোতে। থেমে যাওয়ার ইঙ্গিত ছিল। চূড়ান্ত সিদ্ধান্তটা নিয়েই নিলেন। খেলোয়াড়ি জীবনের শেষ বলে দিলেন স্পেনকে বিশ্বকাপ ও ইউরো জেতানো এই স্ট্রাইকার।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম গুলিতে নিজের এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছেন স্পেনের ইতিহাসের শ্রেষ্ঠতম এই স্ট্রাইকার, ‘ব্যাপারটা নিয়ে আমি বেশ কিছুদিন ধরে ভাবছি। আমার পরিবার, পরিজন, বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে ব্যাপারটা নিয়ে আলোচনা করেছি। আমি নিজের ইচ্ছায় অবসর নিতে চেয়েছি সব সময়। পরিস্থিতি আমাকে অবসর নিতে বাধ্য করুক, সেটা চাইনি।’

জাপানি লিগের চলমান মৌসুম শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ‘খেলোয়াড়’ ডেভিড ভিয়াও থেমে যাবেন। যেতে যেতে আর একটা ইচ্ছা পূরণ করতে চান তিনি, ‘একটা ট্রফি জিতেই ক্যারিয়ারটা শেষ করতে চাই। যে কারণে আগামী জানুয়ারির এক তারিখে ভিসেল কোবের হয়ে এমপেরর কাপের ফাইনাল খেলেই বুটজোড়া তুলে রাখব।’

তবে খেলোয়াড় হিসেবে ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেলেও ফুটবলের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ হচ্ছে না। নিউ ইয়র্কের কুইন্সবরো এফসি’র নতুন বিনিয়োগকারী হতে চলেছেন তিনি। ভিয়ার আশা, আকাঙ্ক্ষা সবকিছু এখন এই কুইন্সবরোকে ঘিরেই, ‘নিউ ইয়র্কে আমি চার বছর থেকেছি। নিউ ইয়র্ক সিটির হয়ে খেলেছি সেই সময়। আমি জানি, নিউ ইয়র্কের কুইন্স কী অসাধারণ একটা জায়গা। আমি নিউ ইয়র্কের সংস্কৃতি, খাবার-দাবার, মানুষ, ফুটবলের প্রতি আগ্রহ – সবকিছু পছন্দ করি। পৃথিবীর অন্য সব জায়গা থেকে এটা আলাদা। একটা ফুটবল ক্লাব গড়ে তোলার জন্য এর থেকে ভালো জায়গা আর হয় না।’একজন ফুটবলার হিসেবে যা যা জেতার স্বপ্ন দেখেছেন, তাই জিতেছেন। স্পেনের স্বর্ণালি প্রজন্মের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। খেলেছেন ফার্নান্দো তোরেস, ইকার ক্যাসিয়াস, জাভি হার্নান্দেজ, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, জাবি আলোনসো, সার্জিও বুসকেটস, কার্লেস পুয়োল, সার্জিও রামোস, জেরার্ড পিকেদের সঙ্গে। বিশ্বকাপ জিতেছেন একবার, ইউরো দুবার। বার্সেলোনার হয়ে লিগও জিতেছেন তিনবার। চ্যাম্পিয়নস লিগ, উয়েফা সুপার কাপ, ক্লাব বিশ্বকাপ, কোপা দেল রে, সুপারকোপা—জেতার বাকি নেই আর কিছুই। ক্যারিয়ার নিয়ে তাই কোনো আক্ষেপ নেই এই তারকার, ‘আমি আমার ক্যারিয়ার নিয়ে অনেক খুশি। আমার আর কিছু চাওয়ার নেই। আমি অনেক গর্বিত। জীবনের শুরু থেকে আমি এই খেলাটাকে ভালোবেসে গেছি। তবে এখন আমার ভবিষ্যৎ কুইন্সেই।’

১৩/১১/২০১৯

৩৬৩