বিদায় ১৪২২! স্বাগত ১৪২৩! বরণে প্রস্তুত সিলেট – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিদায় ১৪২২! স্বাগত ১৪২৩! বরণে প্রস্তুত সিলেট

প্রকাশিত: ৫:২৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০১৬

বিদায় ১৪২২! স্বাগত ১৪২৩! বরণে প্রস্তুত সিলেট

DSCআজ চৈত্র মাসের ৩০ তারিখ রাত পোহালেই ১লা বৈশাখ। বিদায় ১৪২২ বাংলা স্বাগত ১৪২৩ সালের। বিদায় নেবে সুখ-দুঃখ হাসি-আনন্দের মিশ্রণে ঘটে যাওয়া একটি বছর। পুরানো সব ঝেড়ে ফেলে শুরু হবে নতুন বছর।
নতুন বছরকে বরণ করতে প্রস্তুত সিলেট। বছরের প্রথম দিনটি বিশেষ ভাবে উদযাপনে আয়োজন করা হয়েছে নানা কর্মসূচী। বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠনসহ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে অনুষ্ঠিত হবে দিনব্যাপী আনন্দ উৎসব। তাছাড়া নববর্ষ উপলক্ষে বিভিন্ন স্থানে বসেছে মেলাসহ সপ্তাহব্যাপী নানা আয়োজন।
বৈচিত্র্যময় বাংলাদেশে বৈশাখ আসে বিশেষ বার্তা নিয়ে। ভ্যাপসা গরমের সাথে হঠাৎ ঝড়বৃষ্টি আবহমান বাংলার গ্রীষ্মকালীন বৈশিষ্ট্য। যদিও মাঝে মাঝে কালবৈশাখী ঝড় আর শীলাবৃষ্টি লন্ডভন্ড করে দেয় ফসলি মাঠ, জনজীবন; তবুও যুগে যুগে শিল্পী-কবিরা বৈশাখ বন্ধনায় লিখেছেন অমর কবিতা ও গান।
বৈশাখকে স্বাগত জানাতে কবি গুরু যেমন গেয়ে উঠেন- ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো..।’; বিদ্রোহী কবিও তেমনিভাবে মেতে উঠেন তার বন্ধনায়- ‘তোরা সব জয় ধ্বনী কর, তোরা সব জয় ধ্বনী কর..।’, ‘ঐ নতুনের কেতন উড়ে…।’
বৈশাখী উৎসবের প্রধান অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য- যাত্রাগান, বাউল গান, নাগর দোলা, বৈশাখী মেলা ইত্যাদি। এমন অনুষ্ঠানের মধ্যেদিয়ে বাংলার মানুষ বরণ করেন বাংলা নববর্ষকে।
অন্যান্য বছরের মতো এবারও বর্ষবরণে প্রস্তত আধ্যাত্মিক নগরী সিলেট। নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সম্পন্ন হয়েছে চুড়ান্ত মহড়া। প্রস্তত সিলেটের বিভিন্ন সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক সংগঠনও। নগর জুড়ে পাওয়া যাচ্ছে উৎসব আয়োজনের খবর।

এর মধ্যে প্রধান উৎসবগুলো হবে ক্বীনব্রিজ মোড়, কবি নজরুল অডিটোরিয়াম, পুলিশ লাইন স্কুল, শ্রীহট্ট সংস্কৃত কলেজ এবং বিভিন্ন কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে।
ক্বীনব্রিজ মোড়ে বুধবার বিকেল থেকে শুরু হয়েছে বর্ষবিদায় ও বরণ অনুষ্ঠান। সম্মিলিত নাট্য পরিষদ অনুষ্ঠানের আয়োজক। একই স্থানে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হবে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে দুই সপ্তাহব্যাপী বৈশাখী মেলা। কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে ৫ এপ্রিল থেকে সিলেট অটিস্টিক স্কুলের উদ্যোগে এবং জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় চলছে বৈশাখী চারু উৎসব। বৃহস্পতিবার এ উৎসব শেষ হলে সেখানে আবার শুরু হবে অন্যান্য অনুষ্ঠানমালা। তাছাড়া বৃহস্পতিবার সকালে বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে নগরীতে অনুষ্ঠিত হবে মঙ্গল শোভাযাত্রা। শাহ্জালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, মেট্টোপলিটন ইউনিভার্সিটি, এমসি কলেজ, মদনমোহন কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও বর্ষবরণ উপলক্ষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। এ ছাড়া নববর্ষ উপলক্ষে বেশ আগে থেকেই সিলেটের বিভিন্ন মার্কেটে চলছে বিভিন্ন ধরনের অফার আর ছাড়ের ছড়াছড়ি। বেশ কয়েকটি মার্কেট বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। বৈশাখী উৎসবের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য আইনশৃংখলা বাহিনীর দেড়সহ¯্রাধিক কর্মী মঠে নেমেছে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।