বিমানবন্দরে খালেদা জিয়াকে সংবর্ধনা দেবে বিএনপি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিমানবন্দরে খালেদা জিয়াকে সংবর্ধনা দেবে বিএনপি

প্রকাশিত: ৫:১১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৬

বিমানবন্দরে খালেদা জিয়াকে সংবর্ধনা দেবে বিএনপি

kalada-zia২১ সেপ্টেম্বর ২০১৬, বুধবার: হজ পালন শেষে বৃহস্পতিবার দেশে ফিরবেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দেশে ফিরলে খালেদা জিয়াকে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

বিমান বন্দর থেকে বনানী পর্যন্ত রাস্তার দুই ধারে দাঁড়িয়ে নেত্রীকে সংবর্ধনা দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বিএনপি নেতাকর্মীদের। তবে সেটা সম্ভব না হলে বিমান বন্দর এলাকায় জনসমাগম ঘটিয়ে দলীয় চেয়ারপারসনকে সংবর্ধনা দেবেন তারা। এ ক্ষেত্রে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের সার্বিক সহযোগিতা করবে বলে আশা নেতাদের।

এ লক্ষ্যে গত রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত যৌথসভায় দল, অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন ও মহানগর নেতাদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

যৌথসভা শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘হজ পালন শেষে দেশনেত্রী খালেদা জিয়া সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরলে সেদিন তাকে যথোপযুক্ত সংবর্ধনা দেয়া হবে।’

ঢাকা মহানগর বিএনপিসহ দলের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতারাও প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। নিজ নিজ সংগঠনের পক্ষ থেকে বিমান বন্দর এলাকায় সর্বোচ্চ উপস্থিতি নিশ্চিত করতে নেতাদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, নেত্রীকে স্বাগত জানাতে বৃহস্পতিবার বিকেলে নেতাকর্মীরা স্বতঃস্ফুর্তভাবে বিমান বন্দরে যাবেন। আশা করি, পুলিশ এবার তাদের কোনো বাধা দেবে না।

সংবর্ধনায় বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ঢাকাসহ আশপাশের এলাকা থেকে এসে সমবেত হবেন। এ জন্য ঢাকা মহানগরের প্রতিটি থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়নের নেতাদের জমায়েত নিয়ে আসার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসান বলেন, ‘বিমানবন্দর এলাকায় নেতাকর্মীদের সর্বোচ্চ উপস্থিতি নিশ্চিতের চেষ্টা করা হবে। ইতোমধ্যে সবাইকে নক করা হয়েছে।’

যুবদলের কেন্দ্রীয় দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম সম্পাদক কাজী রফিক বলেন, ‘নেত্রীকে স্বাগত জানাতে বিমান বন্দর থেকে বনানী পর্যন্ত রাস্তার দুইধারে যুবদলের নেতাকর্মীরা অবস্থান করবে। ঢাকা ও এর আশপাশের জেলা এবং কেন্দ্র ও ঢাকা মহানগরের নেতাকর্মীদের সর্বোচ্চ অংশগ্রহণ থাকবে।’

উল্লেখ্য, হজ পালনের উদ্দেশে গত ৭ সেপ্টেম্বর রাজকীয় মেহমান হয়ে সৌদি আরব যান খালেদা জিয়া। লন্ডন থেকে তারেক রহমান স্ত্রী জোবাইদা রহমান ও মেয়ে জাইমা রহমানকে সঙ্গে নিয়ে হজ পালন করতে সৌদি আরব যান। এছাড়া খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমানও সৌদি আরব যান। গত ১১ সেপ্টেম্বর তারা হজ পালন শেষে মিনায় হজের সর্বশেষ আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন