বিয়ানীবাজারে স্ত্রীকে গণধর্ষণ : স্বামী ও ছাত্রদল নেতাসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিয়ানীবাজারে স্ত্রীকে গণধর্ষণ : স্বামী ও ছাত্রদল নেতাসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১২

বিয়ানীবাজারে স্ত্রীকে গণধর্ষণ : স্বামী ও ছাত্রদল নেতাসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি
সিলেটের বিয়ানীবাজারে স্বামীর সহযোগিতায় স্ত্রীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। বুধবার রাত সাড়ে ১১ টার সময় বিয়ানীবাজার উপজেলার বাগবাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় স্বামীসহ আরো ৪ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দাখিল করেছেন ধর্ষিতার বাবা বিয়ানীবাজার উপজেলার চারখাই সাচান চক গ্রামের মাহতাব আহমদ।
মামলার আসামীরা হলেন, বিয়ানীবাজার উপজেলার চারখাই বাগবাড়ি গ্রামের মটর গাজীর ছেলে সাইদুল ইসলাম, একই গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে ও বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক সাঈদ এমরান, আজিজুর রহমানের ছেলে আব্দুল কুদ্দুছ, গিয়াস উদ্দিনের ছেলে আরিফ উদ্দিন।
সূত্র জানায়, ইসরামী শরিয়াহ মোতাবেক সামাজিকভাবে সাইদুল ইসলামের সাথে বিবাহ হয় চারখাই সাচান চক গ্রামের সুরমা আক্তারের। বিয়ের কিছু দিন ভালোভাবে গেলেও পরে জানা যায় সাইদুল দুঃচরিত্র। ফলে সে বিভিন্ন সময় কারণে অকারণে সুরমাকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে। এতে সুরমা তার বাবার বাড়ি চলে যান। কিন্তু কিছু দিনপর সাইদুল ইসলাম কিছু লোক নিয়ে গিয়ে বিচার শালিসের মাধ্যমে তার স্ত্রীকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। গত মঙ্গলবার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিয়ানীবাজার বাগবাড়ি যুব সংঘ’র উদ্যোগে সংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। এতে নৃত্য শিল্পী আগত শিল্পীরা গান শুরু করেন। এতে স্থানীয় এলাকাবাসি বাধা নিষেধ প্রদান করলে সংর্ঘষ শুরু হয়। এসময় স্থানীয় লোকজন অনুষ্টান বন্ধের নির্দেশ প্রদান করেন। তখন এলাকার মুরব্বি মাহতাব আহমদসহ অন্য মুরব্বিয়ান বসে সালিশের মাধ্যমে অনুষ্ঠান আয়োজক হিসেবে সাঈদ এমরানকে বেত্রাঘাত করে ৫০ বার কান ধরে উঠ বস করানো হয়। এ কারণে সে তার পরিবার থেকেও বিছিন্ন হয়ে পড়ে এবং তার বন্ধু সাঈদুলের সাথে অবস্থান করে। আর মাহতাব আহমদের উপর প্রতিশোধের জের ধরে তার মেয়ে সুরমা আক্তারকে ধর্ষণের পরিকল্পনা করে। বুধবার রাত সাড়ে ১১ টায় সুরমার স্বামীর সহযোগিতায় ও টাকার প্রলোভন দেখিয়ে সাঈদ এমরান, আব্দুল কুদ্দুছ, আরিফ উদ্দিন মিলে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। এ ঘটনায় সুরমা আক্তারের পিতা বাদী হয়ে জোর পূর্বক গণধর্ষণের অভিযোগে বিয়ানীবাজার থানার মামলা নম্বর ৯৫(০২)১২ ইং দাখিল করেন।
এ ব্যাপারে বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাম্মেল হক জানান, স্বামীর সহযোগিতায় স্ত্রীকে গণধর্ষন’র অভিযোগে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দাখিল করেছেন। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল