বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রপের সংঘর্ষ, শিক্ষকসহ আহত ৫ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রপের সংঘর্ষ, শিক্ষকসহ আহত ৫

প্রকাশিত: ১:৪৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৬

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রপের সংঘর্ষ, শিক্ষকসহ আহত ৫

bcllop২০ অক্টোবর ২০১৬, বৃহস্পতিবার: বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রপের মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষ হয়।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার উপজেলা ছাত্রলীগ পল্লবগ্রুপের কর্মী জুনেদ আহমদ শ্রেণির কক্ষের জানালার কাঁচ ভাংচুর করলে শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের কাছে নালিশ দেন। এ নিয়ে সেদিন কয়েকজন শিক্ষার্থীদের সাথে জুনেদের বাগবিতন্ডা ঘটে। বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার দিকে পল্লব গ্রুপের কর্মী জুনেদ আহমদকে কলেজ ফটকের কাছে পেয়ে মূলধারা গ্রুপের ছাত্রলীগ কর্মীরা সশস্ত্র হামলা চালায়। কলেজ চত্বরের উভয় পক্ষের মধ্যে ইট পাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার শুরু হয়। এসময় কলেজের বাংলা বিষয়ের প্রভাষক মুনিরুল আলম আহত হন।

এদিকে সহকর্মী শিক্ষকরা খবর পেয়ে প্রভাষক মনিরুল ইসলামকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন। প্রভাষক মনিরুল ইসলাম বলেন, আমাকে কেউ আক্রমন করেনি। ছাত্রলীগের এককর্মী আহত অবস্থায় পালানোর সময় আমার উপর এসে পড়ে যায়। এতে আমি আঘাত পাই।

ছাত্রলীগ পল্লবগ্রুপের নেতা জাফর বলেন, বুধবার কলেজ ক্যাম্পাসে আমাদের কর্মী জুনেদকে মূলধারা গ্রুপের রাব্বি, আব্দুলাহসহ কয়েখজন আটক করে মারধার করে। এ ঘটনা মূলধারা গ্রুপের বেলায়েত হোসেনকে জানাই। তিনি ছাত্রলীগ নেতা জাফরকে দায়িত্বদেন ঘটনাটি সমাধান করার। আজ সন্ধ্যায় কালকের ঘটনা সমাধান হওয়ার কথা। এর মধ্যে আজকে জুনেদকে তারা দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে।

মূলধারা গ্রুপের সিদ্দিকুর রহমান বলেন, কোন উত্তেজনা ছাড়াই পল্লবগ্রুপ সশস্ত্র হামলা চালিয়ে আমাদের ছাত্রলীগ নেতা কলেজের স্নাতক (পাশ) পরীক্ষার্থী ফায়েককে পিটিয়ে আহত করেছে।

বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আবুল বাশার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে কাউকে পাওয়া যায়নি। শহরের জামান প্লাজা এলাকায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সংঘটিত অবস্থায় দেখে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় কোন পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেনি বলে তিনি জানান।