বীরদর্পেই মুক্ত হলেন দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক বীর সুশান্ত – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বীরদর্পেই মুক্ত হলেন দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক বীর সুশান্ত

প্রকাশিত: ৯:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০২০

বীরদর্পেই মুক্ত হলেন দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক বীর সুশান্ত
তারেক হাবিব, হবিগঞ্জ
এমপি আবু জাহিরের পক্ষে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাজানো মামলায় কারামুক্ত হলেন দৈনিক “আমার হবিগঞ্জ” পত্রিকার সম্পাদক-প্রকাশক, জাতীয় ‘‘আমার এমপি ডট কম’ এর প্রতিষ্ঠাতা প্রকৌশলী সুশান্ত দাস গুপ্ত। উচ্চ আদালত থেকে জামিন পাওয়ার পর গতাকাল বৃহস্পতিবার হবিগঞ্জের জেলা কারাগার থেকে দুপুরে তিনি মুক্ত হয়ে আসেন। এর আগে সুশান্ত’র মুক্তি অপেক্ষায় জেল হাজতের সামনে শত-শত শুভাকাঙ্খিরা তার জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন। একপর্যায়ে সাবেক এমপি আমাতুল কিবরিয়া চৌধুরী কেয়া’র উপস্থিতিতে সামাজিক নিরাপদ দুরত্ব মেনে প্রায় ২’শ মোটর সাইকেলের এক মোটর শোভাযাত্রা সহকারে তার গ্রামের বাড়ি বানিয়াচংয়ের সুনারুতে পৌছে দেয়া হয়।
এ সময় পুরো শহর জুড়ে সুশান্ত একনজর দেখার জন্য সর্বস্তরের মানূষ দুই পাশে দাঁড়িয়ে তাকে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান। তার গ্রামের বাড়ি সুনারুতে পৌছার পর পুরো গ্রামবাসী করতালি ও ফুলের পাপড়ীর মাধ্যমে তাদের প্রিয় সন্তান সুসান্তকে স্বাগত জানান।
পরে এলাকাবাসীদের নিয়ে এক সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংসদীয় আসনের সাবেক সাংসদ আমাতুল কিবরিয়া চৌধুরী কেয়া ও সদ্য কারামুক্ত দৈনিক “আমার হবিগঞ্জ” পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক প্রকৌশলী সুশান্ত দাস গুপ্ত।
মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের ভার্চুয়াল আদালতের বিচারপতি মোঃ আশরাফুল কামাল রবিবার (১৪জুন) হবিগঞ্জে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের সাজানো মামলায় গ্রেফতার সাংবাদিক সুশান্ত দাস গুপ্ত’কে জামিনে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দেন। আদালতে সুশান্ত দাস গুপ্তের পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি সিনিয়র এডভোকেট এএম আমিন উদ্দিন ও এডভোকেট সাকিব রেজোয়ান কবির। বাদি পক্ষের আইনজীবি ছিলেন ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল এডভোকেট বশির আহমেদ।
উল্লেখ্য, হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত দৈনিক “আমার হবিগঞ্জ” পত্রিকার সম্পাদক প্রকাশক ও সাড়া জাগানো সংগঠন আমার এমপি ডট কমের প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার সুশান্ত দাশ গুপ্তকে গত গত ২১ মে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতার করে হবিগঞ্জ সদর থানা পুলিশ।
আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় অনিয়ম দুর্নীতির খবর প্রকাশ করায় স্থানীয় এমপি আবু জাহিরের মানহানি হয়েছে, এই অভিযোগের বিবরণ দিয়ে ২০মে গভীর রাতে সুশান্ত দাশগুপ্ত, নির্বাহী সম্পাদক নুরুজ্জামান মানিক, বার্তা সম্পাদক রায়হান উদ্দিন সুমন ও প্রধান প্রতিবেদক তারেক হাবিব’এর বিরুদ্ধে মামলা করেন হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও আর টিভির হবিগঞ্জ প্রতিনিধি সায়েদুজ্জামান জাহির। পরে প্রেসক্লাবে সভা ডেকে ওই মামলার প্রতি সমর্থন আদায় করা হয়। ওই মামলায় ২১ মে সকালে পত্রিকার কার্যালয় থেকেই গ্রেফতার হন সুশান্ত দাশগুপ্ত। পরে ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ও জেলা দায়রা জজ আদালত সুশান্তের জামিন আবেদন নাকচ করলে মহামান্য হাইকোর্টের ভার্চুয়াল আদালতে তার পক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। এদিকে, ২১ মে রাতে ওই পত্রিকার প্রধান প্রতিবেদক তারেক হাবিব’এর বাড়িতে হামলা-ভাংচুর এবং লুটপাট চালায় একদল দূবৃর্ত্তরা। এ ঘটনায় ওই পত্রিকা কর্তৃপক্ষ বাদী হয়ে দ্রæত বিচার আইনে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।