ব্যবসায়ী হত্যাকাণ্ডে লালাবাজারে থমথমে পরিস্থিতি, রোববারও মহাসড়কে অবরোধ কর্মসূচি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ব্যবসায়ী হত্যাকাণ্ডে লালাবাজারে থমথমে পরিস্থিতি, রোববারও মহাসড়কে অবরোধ কর্মসূচি

প্রকাশিত: ৬:৩১ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০১৬

ব্যবসায়ী হত্যাকাণ্ডে লালাবাজারে থমথমে পরিস্থিতি, রোববারও মহাসড়কে অবরোধ কর্মসূচি

28193সিলেটের দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারে সন্ত্রাসী হামলায় মো. আজির উদ্দিন (৪৫) নামের এক ফার্মেসী ব্যবসায়ী নিহতের পরদিন এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পুরো এলাকা শোকে মুহ্যমান। প্রতিবাদে সারাদিন বন্ধ ছিল  লালাবাজারের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

নিরপরাধ একজন মানুষকে এভাবে হত্যা কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না এলাকাবাসী। এর প্রতিবাদে রোববারও দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন ও কর্মবিরতি পালন করবেন তারা।
শুক্রবার দিবাগত রাতে এই হত্যাকাণ্ডের পর মধ্যরাতেই ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করেও প্রতিবাদ জানানো হয়েছিল। শনিবার ওই এলাকায় গিয়ে জানা যায় ঘটনার বিস্তারিত।

আজির উদ্দিনের ফার্মেসীতে প্র্যাকটিস করতেন ডায়বেটিকস বিশেষজ্ঞ মেডিসিন বিভাগের ডাক্তার নাদির হোসেন চৌধুরী। গত বুধবার রাতে তার প্রাইভেট কার স্থানীয় জুনাব আলী রাইস মিলের সামনে পার্কিং করে তিনি চেম্বারে আসেন।

আজির উদ্দিনের ফার্মেসি শাহজালাল মেডিকেল হলের শিক্ষানবিশ জুয়েল আহমদ ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, ঘটনার দিন ব্যক্তিগত কাজে তিনি দোকানের বাইরে ছিলেন। আসার পর জানতে পারেন জুনাব আলী রাইস মিলের উঠানে ভরাউটা গ্রামের আল ইছলাহ নেতা আজাদ তার প্রাইভেট কার দিয়ে ডাক্তার নাদিমের কারের পেছনে ধাক্কা দেন।  এতে ডাক্তার নাদিমের কার অনেকখানি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এ ঘটনায় ফার্মেসী মালিক আজির উদ্দিনের সাথে আজাদের বেশ বাকবিতন্ডা হয়।
এক পর্যায়ে অলঙ্কার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুবেল, বিশিষ্ট ব্যক্তি মোনায়েম খান বাবুল ও দ. সুরমা থানার একজন কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে রবিবার (২১ আগস্ট) বিচারের দিন ধার্য করা হয়। তবে প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে হামলা করতে পারে বলে সতর্ক করেছিলেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা পরে সেটাই সত্যি হয়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি বলেন, “রাত সাড়ে ১১ টায় দোকান বন্ধ করে বাড়ী যাওয়ার সময় হাফিজ আজাদ ও তার ভাই রিয়াজ  জিআই পাইপ ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে নিয়ে  আজির মিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করে। হাফিজ আজাদদক্ষিণ সুরমা উপজেলা তালামীযের অর্থ-সম্পাদক। তাঁর ভাই রিয়াজ যুবলীগ নেতা। লালাবাজার ইউনিয়নের ভরাউট গ্রামের তহির মিয়ার পুত্র তারা। সরকারদলীয় রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকায় এই হত্যার বিচার পাওয়া নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে সংশয় দেখা দিয়েছে।
নিহত  আজির মিয়া বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকার ইউনিয়নের টেংরা গ্রামের মৃত মবশ্বির আলীর ছেলে।
দক্ষিণ সুরমা থানার  ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আতাউর রহমান “লাশ দাফনের পরে নিহতের পরিবার থেকে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি প্রক্রিয়াধীন। “

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল