ভুল চিকিৎসায় কামাল বাজারের সুমি’র মৃত্যু – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ভুল চিকিৎসায় কামাল বাজারের সুমি’র মৃত্যু

প্রকাশিত: ২:২২ পূর্বাহ্ণ, জুন ৩০, ২০১৮

ভুল চিকিৎসায় কামাল বাজারের সুমি’র মৃত্যু

দক্ষিণ সুরমা উপজেলাধীন ১০ নং কামাল বাজার, ইউ/পি ধরগাঁও সুমি বেগম (৩২) পিতা হাজী আব্দুল মন্নান। সুমি বেগমের পরিবার থেকে জানানো হয়, পিতেরপাথর অপারেশন করার জন্য গত ১২/০৬/১৮ইং তারিখে ডা. খালেদ মাহমুদ এর কাছে নিয়ে যাওয়া হয় সুমি বেগমকে। ডা. খালেদ মাহমুদ উনার মনোনীত হেলথকেয়ার ক্লিনিকে যথারীতি অপারেশ করতে নিয়ে যান। ডাক্তারে সাথে কথা হয় শুধু পিত্তথলির পাথর অপারেশন করার জন্যে এবং অপারেশন করতে হবে ল্যাপারোস্কোপিকের সাহায্যে কিন্তু অপারেশন চলাকালীন সময়ে উনি রক্তমাখা হাতে বের হয়ে বলেন ল্যাপারোস্কোপিক উপায়ে সম্ভব না, এই রোগীকে কেঁটে অপেন করে অপারেশন করতে হবে, পরিবারের সবাই নিরুপায় হয়ে সম্মতি দেন, পরবর্তীতে উনি আরেকজনের সহায়তায় অপারেশন করেন এবং বলেন রোগীর পেটে টিউমার এবং এপেনডিসেকট্মি পাওয়ার কারনে ল্যাপকল সম্ভব হয়নাই। যাইহোক উনাদের কাছ থেকে অপারেশন বাবত প্রায় ১ লক্ষ টাকা নেয়া হয়। অপারেশনের ২ দিন পরে রোগীর হঠাৎ করে টয়লেটের সাথে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়, উনি এসে বলেন যে এইগুলো ময়লা আমি (ডাক্তার) চিন্তামুক্ত হলাম রক্ত দেখে এবং ওদের ছুটি দিয়ে দেন ১ দিন পরে। বাসায় যাওয়ার পরের দিন থেকে অল্প অল্প ব্লিডিং শুরু হয়, এবং গত ৩/৪ দিন আগে হঠাৎ করে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ শুরু হলে তারা জরুরী ভিত্তিতে ওয়েসিসথ হাসপাতালে আইসিইউতে ভর্তি হন। ওয়েসিস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ডা: খালেদ মাহমুদকে কল দেয়, উনি ডা সায়েক আজিজ স্যারকে নিয়ে আসেন এবং পরামর্শ করেন। ২ দিন আইসিইউতে রেখে ৯ ব্যাগ রক্ত দেয়ার পরে হিমোগ্লোবিন ৬ দেখায় এবং ব্লিডিং কন্টিনিউ হতে থাকে। ব্লিডিং বন্ধ করা কিংবা রোগীর চিকিৎসায় ওয়েসিস হাসপাতালের দায়িত্বহীনতা ও ব্যর্থতায় আমরা হতবাক হলাম। উল্লেখ্য আমাদের ওয়েসিস হাসপাতালের ৪৫ হাজার টাকা কিন্তু ঠিকই গুণতে হয়েছে। পরবর্তীতে আমরা নিরুপায় হয়ে ওয়েসিস হাসপাতাল থেকে বের হয়ে মা ও শিশু হাসপাতালে আইসিইউতে যাই, এবং মা ও শিশু হাসপাতালে ডা: আলমগীর সাখাওয়াত ও সার্জারি ও অন্যান্য বিভাগের ডাক্তারদের সুপরামর্শে সেইদিন ই আইসিইউ এম্বুলেন্সে করে ঢাকায় স্থানাস্তর করা হয় । ঢাকা ইজই হাসপাতালে ডা. মোহাম্মদ আলীর সমন্বযূ আবার অপারেশন করা হয়, এবং সেই অপারেশনের মাধ্যমে একটা বড় ধরনের রহস্য বের হয়ে আসে, যা সিলেটে অপারেশনের সময় করা হইছিল। রোগীর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে গতকাল ২৮/০৬/১৮ইং সকাল ১১:৪০মিনিটে মৃত্যু হয়। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে পরিবার থেকে জানানো হয়েছে।
সুমি বেগমের নামাজে জানাজায় উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ ত্রান ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, ছইফাগঞ্জ এস.ডি মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাও আব্দুর রউফ, কামাল বাজার ফাজিল মাদ্রাসা সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমান, প্রধান মুরব্বি হাজ্জী আব্দুর রহমান, ফয়েজ আলী, সোনাফর আলী, মন্নাই মিয়া, ইশাদ আলী, কামাল আহমদ প্রমুখ।
সুমি বেগমের ৪ মেয়ে স্বামী সিরাজুল ইসলাম (সৌদিয়া আরব প্রবাসী) জানাজা শেষে পারিবারিক কবস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়। ধরগাঁও জামে মসজিদ প্রানংে রহিমপুর গ্রামে বাসিন্দ হাফিজ ফাহিম আহমদ জানাযা নামাজ নামাজ পড়ান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল