ভোগান্তির নাম প্রি-পেইড মিটার ! রিচার্জে নেই কেন সুরাহা? – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ভোগান্তির নাম প্রি-পেইড মিটার ! রিচার্জে নেই কেন সুরাহা?

প্রকাশিত: ১১:৫৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০১৯

ভোগান্তির নাম প্রি-পেইড মিটার ! রিচার্জে নেই কেন সুরাহা?

সুয়েবুর রহমান

সাম্প্রতিক সময়ে সিলেট নগরিতে ভোগান্তির শেষ নেই প্রি-পেইড মিটারে।এক সময়ে ওই মিটারে কার্ড রিচার্জে জন্য নির্দিষ্ট ব্যাংকে গিয়ে দৈর্ঘ্য লাইনে দাঁড়িয়ে টোকন সংগ্রহ করতে হত।যা গ্রাহকদের জন্য মরার উপর খাঁড়ার গাঁ হয়ে দাঁড়িছিল।আর এই ভোগান্তির অবসানের জন্য বর্তমানে নির্দিষ্ট মোবাইল রিচার্জ পয়েন্টে প্রি-পেইড মিটারের কার্ড রিচার্জের ব্যবস্থা করা হয়েছে।এবং নিজেই একাউন্ট থেকে কার্ড রিচার্জের জন্য গ্রামীন সিম থেকে জিপে(GPAY) সার্ভিস চালু হয়েছে।কি সহজ সুবিধা।বলতে গেলে প্রি-পেইড মিটারেরে কার্ড রিচার্জ হতের মুঠোয়।কিন্তু রিচার্জের সুবিধা বাড়লে ও ভোগান্তি কমছে না বলে অভিযোগ রয়েছে গ্রাহকদের।

গত শুক্রবার (৮ নভেম্বর) মিটারের ব্যালেন্স শেষ পর্যায়ে।তাই কার্ড রিচার্জের জন্য ৫১০ টাকা হাতে নিয়ে নির্দিষ্ট টেলিকম ব্যবসায়ী শরণাপন্ন হলেন কামরুল ইসলাম(২৭)নামের এক ব্যক্তি।কিন্তু কার্ড রিচার্জ করা সম্ভব হয়নি।কারণ নেটওয়ার্কে সমস্যা।তাই  ব্যর্থতা প্রকাশ করলেন টেলিকম ব্যবসায়ী।এখন নিরুপায় গ্রাহক কামরুল।আজ মিটারের কার্ড রিচার্জ কারা সম্ভব হয়-নি।অন্ধকারে রাত্রি যাপন করতে হবে।পরদিন সকালে ৭টায় লাইনের পানি তুলতে হবে।না তুললে পানির সংকট দেখা দেবে।কি করবেন তিনি  একটা পথ অবশিষ্ট রয়েছে জিপে(GPAY)  একাউন্টে রিচার্জ করে রাখা।তাহলে সকালে ৭টায় কার্ড রিচার্জ সম্ভব হবে।পানি ও তুলতে পাড়বেন তিনি।তাই তিনি জিপে একাউন্টে ৩০০টাকা রিচার্জ করলেন।কিন্তু সকালে একই সমস্যা নেটওয়ার্কে।২৯০ টাকা একাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হয়েছে।অথচ টোকন নাম্ভারের ম্যাসেজ আসছে না।সকাল বিকেল পেড়িয়ে সন্ধ্যা হলো কিন্তু টোকন নাম্ভারের ম্যাসেজ আসলো না।তাই গ্রামীণফোন হ্যাল্প লাইনে কল দিলেন।কল রিসিভ করলেন একজন মহিলা।জানতে চাইলেন কেন টোকন নাম্ভার দেওয়া হল না!অথচ টাকা কেটে নেওয়া হল?কিন্তু হ্যাল্প লাইনে ওই মহিলা অনেক চেষ্টার পর বললেন আজ আপনার জিপে একাউন্টে থেকে কোন ধরনের বিল রিচার্জে হয়-নি।তিনি অবাক হলেন,*৭৭৭# ডায়েল করে তিনি ৬ নং অপশনে প্রবেশ করেন তিনি। এবং ৬ নং অপশনে প্রবেশের পর তিনি ৩ নং অপশনে প্রবেশ করেন।৩ নং অপশনে প্রবেশের পর মিটার একাউন্ট নাম্ভার এবং জিপে একাউন্টের পিন ডায়েল করেন।এরপর দেখা যায় (মিটার  একাউন্ট নাম্ভার ব্যতীত) তা হুবুহু তুলে ধরা হল। (1.BILLPAY ON 09/112019 Company PDBSP Acc No 1429….. of 290.00 BDT)। এবিষয়ে কামরুল আরও বলেন,জিপে একাউন্টে ২৯০ টাকা ফেরত অথবা টোকেন নাম্ভার না পেলে তিনি আইনি প্রক্রিয়া দারস্থ হবেন।
তবেঁ মোবাইল রিচার্জ পয়েন্টে ও সন্ধ্যাকাল পর্যন্ত কার্ড রিচার্জ সম্ভব হয়-নি  বলে জানিয়েছেন তিনি।
এদিকে, প্রি-পেইড মিটার নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে রয়েছে নানা জল্পনাকল্পনা।অনেকেই বলতে শুনা যায়,পূর্বে যে মিটার লাগানো হয়েছে ওই মিটারের জন্য ৫ হাজার টাকা গুনতে হয়েছে গ্রাহকদের।এখন আবার প্রি-পেইড মিটারের জন্য মাসে মাসে টাকা গুনতে হচ্ছে।ভাড়াটে গ্রাহকরা বলছেন,প্রতি মাসে আমাদের(ভাড়াটে) কাছ থেকে কেন মিটারের ৪০ কিস্তি পরিশোধ করতে হবে?মাসিক ৪০টাকা মালিকের কাছ থেকে নেওয়া উচিত ছিল।আবার কেউ বলছেন রাক্ষুসে মিটার  প্রি-পেইড মিটার।