মহাজনপট্টিতে ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলছে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

মহাজনপট্টিতে ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলছে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা

প্রকাশিত: ১১:৪৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

মহাজনপট্টিতে ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলছে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা

নিজস্ব প্রতিবেদক
সিলেট নগরীর মহাজনপট্টিতে মেসার্স আব্দুর রউফ এন্ড সন্স নামে একটি দোকান কোঠায় ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলছে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা। টিনের ছাউনী এবং হার্ডবোর্ডে ঘেরা এই দোকানে যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। বিষয়টি নিয়ে দোকানের জমির মালিক মো. লিটন মিয়া অনেকবার সিসিক’কে অবগত করলেও কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না!
এদিকে দোকান কোঠার মালিক বড়ধরণের দুর্ঘটনা এড়াতে ভাড়াটিয়া সুমন আহমদকে দোকান ছাড়ার কথা বলেও তার পক্ষ থেকে কোনো সদুত্তর মিলছে না। জমির মালিক লিটনের অভিযোগ, দীর্ঘদিন থেকে সুমন আহমদ আজ-কাল বলে সময় ক্ষেপণ করছেন। তাই নিরুপায় হয়ে এবার অভিযোগ করেছেন জেলা প্রশাসক ও এসএমপি’র পুলিশ কমিশনারের কাছে।
মো. লিটন মিয়া জানান, বর্তমানে এই দোকান কোঠাতে টিনের ছাউনী এবং হার্ডবোর্ডে ঘেরা রয়েছে। এভাবে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা করলে যেকোনো মুর্হূতে বড়ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। মৌখিকভাবে ভাড়াটিয়া সুমন আহমদকে অনেকবার বলার পরও তারা আমার কথা আমলে নিচ্ছে না। তাছাড়া এই অবস্থায় আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা করার উপযোগী নয়।
নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক মহাজনপট্টির একজন ব্যবসায়ী জানান, মেসার্স আব্দুর রউফ এন্ড সন্সের প্রোপাইটার সুমন আহমদ সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের ঘনিষ্ঠভাজন ১৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ সিরাজের আত্মীয়। জাবেদ সিরাজের সহযোগিতার কারণে সুমন দোকান কোঠা ছাড়তে চাচ্ছে না।
১৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ সিরাজ প্রবাসে থাকার কারণে তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
বিষয়টি অবগত আছেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি জানান, ঝুঁকিপূর্ণভাবে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদের ব্যবসা সিসিকে হবে না। সিসিকের একটি টিম দোকান কোঠাটি পরিদর্শন করেছে। তাদেরকে আমরা চলতি সপ্তাহে সিসিকে আসতে বলেছি।