মহিলার গলিত লাশ উদ্ধার, দুই কন্যা শিশু নিয়ে পলাতক স্বামী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

মহিলার গলিত লাশ উদ্ধার, দুই কন্যা শিশু নিয়ে পলাতক স্বামী

প্রকাশিত: ৪:৫৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১০, ২০১৬

মহিলার গলিত লাশ উদ্ধার, দুই কন্যা শিশু নিয়ে পলাতক স্বামী

uddar sylhetসিলেট নগরীর পীর মহল্লায় এক বাসা থেকে আয়েশা খানম (২৬) নামের এক মহিলার গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার বিকেলে পীর মহল্লার সুনু মিয়ার কলোনির ১৮২ নং ভাড়া বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। লাশ উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ১ বছর ও তিন বছর বয়সের দুই কন্যা সন্তানকে নিয়ে পলাতক রয়েছে আয়েশার স্বামী কয়েছ আহমদ (৩৫)। কয়েছ বিয়ানীবাজারের গোবিনশ্রী গ্রামের মৃত ফরিদ উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীরা জানান, প্রায় এক সপ্তাহ আগে আয়েশা খানমের মৃত্যু হয়েছে। আয়েশার বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা আব্দুস শুকুর ও স্ত্রী সালমা বেগম একই এলাকয় ১৬৬ নং বাসায় ভাড়া থাকেন।

নিহতের মা সালমা বেগম জানান, আমার মেয়েকে তার স্বামী যৌতুকের জন্য প্রায়ই নির্যাতন করত। ঈদের ৩দিন পূর্বে মেয়ের সাথে সর্বশেষ দেখা হয়েছিল। সে সময় কয়েছ আহমদ তাদের কাছে ব্যবসার জন্য ৪ লাখ টাকা চেয়েছিল এবং দুই মেয়ে ও নিজেদের জন্য ঈদের বাজারের জন্য টাকা চেয়েছিল। তবে সে সময় টাকা না থাকায় তাদের দিতে পারেননি। সে দিনের মত তাদের বুঝিয়ে বাসায় পাঠিয়েছিলেন আয়েশার বাবা আব্দুস শুকুর ও মা সালমা বেগম।
আব্দুস শুকুর জানান, ঈদের একদিন আগে মেয়ের খুজ নিতে বাসায় এসে দেখেছিলেন বাইরে থেকে তালা বন্ধ করে রাখা । তিনি মনে করেছিলেন মেয়েকে নিয়ে কোথাও বেড়াতে গেছেন।

এদিকে রোববার দুপুরে আয়েশা বেগমের ভাড়া বাসায় পচা গন্ধ পেয়ে পুলিশ ও আয়েশার বাবা আব্দুস শুকুর এবং পরিবারের লোকজনদের খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তালা ভেঙে আয়েশার গলিত লাশ দেখতে পায়।
এ ব্যাপারে রোববার বিকল ৫টায়ে ঘটনাস্থলে থাকা সিলেট বিমান বন্দর থাসার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল হোসেন জানান, লাশ দেখে মনে করা হচ্ছে প্রায় এক সপ্তাহ আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে। লাশের বেশীর ভাগ অংশ পচে গেছে। স্বামী কয়েছে তার দুই কন্যা শিশুকে নিয়ে পালিয়েছে।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল