মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন মানুষ হলেই সমাজ ও দেশকে পরিবর্তন সম্ভব –আব্দুল মান্নান – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন মানুষ হলেই সমাজ ও দেশকে পরিবর্তন সম্ভব –আব্দুল মান্নান

প্রকাশিত: ৫:১০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৭, ২০১৮

মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন মানুষ হলেই সমাজ ও দেশকে পরিবর্তন সম্ভব –আব্দুল মান্নান

রোটারি জালালাবাদ ক্লাবের ৩৪তম অভিষেক অনুষ্ঠান
বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান বলেছেন, মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন মানুষ হলেই সমাজ ও দেশকে পরিবর্তন করা সম্ভব। এর মাধ্যমে মানুষ হয়ে উঠবে সমাজের আলোকিত ব্যক্তিত্বে। রোটারিয়ানরা মানবকল্যাণের মাধ্যমে সমাজ ও দেশের সভ্যতার বিকাশে কাজ করছেন যা অত্যন্ত প্রশংসার দাবীদার। সমাজ নয়, পরিবার থেকে শ্রদ্ধা, দায়িত্ববোধ এবং ভালোবাসার পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে দেশকে সমৃদ্ধ করা সম্ভব।

রোটারি ক্লাব অব জালালাবাদ-এর উদ্যোগে আয়োজিত ৩৪তম অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শুক্রবার (৩ আগস্ট) রাতে নগরীর বন্দরবাজারস্থ সিলেট স্টেশন ক্লাবের সম্মেলন কক্ষে এই অভিষেক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এছাড়া প্রফেসর আব্দুল মান্নান ভারতবর্ষের ইতিহাস সমৃদ্ধ উল্লেখ করে বলেন, একসময় মুসলমানরা জ্ঞান-বিজ্ঞানে সমৃদ্ধ ছিল বলেই অর্ধেক পৃথিবী শাসন করেছে। জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চা থেকে দূরে থাকায় ইংরেজরা ভারতবর্ষকে লুটপাঠ করে নিজেদেরকে সমৃদ্ধ করেছে। আমাদেরকে জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চায় এগিয়ে আসতে হবে।

বাংলাদেশের আর্থসামাজিক অবস্থার পরিবর্তনে খেটে খাওয়া মানুষের অবদানকে প্রসঙ্গ করে তিনি বলেন, মানুষকে ভালোবাসতে আমাদের। নিজেরা যদি পরিবর্তন হই, সমাজ পরিবর্তন হবে। জনকল্যাণমূলক কাজের মাধ্যমে সেই পরিবর্তন আনা সম্ভব। রোটারিয়ানদেরকে এজন্য এগিয়ে আসতে হবে। নতুন প্রজন্মকে মূলবোধের শিক্ষায় শিক্ষিত করতে মনীষীদের জীবনবৃত্তান্ত পড়তে উৎসাহিত করতে হবে।

ক্লাব বিদায়ী প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান হানিফ মোহাম্মদ ও দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান মাসুদ আহমদ চৌধুরীর যৌথ সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিডিজি শহীদ আহমদ চৌধুরী, ডিজিই লে. কর্নেল (অব.) এম. আতাউর রহমান পীর।

অভিষেক অনুষ্ঠান কমিটির চেয়ারম্যান রোটারিয়ান পিপি প্রফেসর ডা. মীর মাহবুবুল আলমের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিভাগ, সিলেট-এর পরিচালক মো. মতিউর রহমান, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও সিলেট স্টেশন ক্লাবের সভাপতি এডভোকেট এমাদ উল্লাহ শহীদুল ইসলাম, রোটারিয়ান পিপি নিরেশ চন্দ্র দাশ।

রোটারিয়ান পিপি মাহবুব সোবহানী চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের দুইটি পর্বের প্রথম পর্বে সভাপতিত্ব করেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান হানিফ মোহাম্মদ। বিদায়ী সেক্রেটারী রোটারিয়ান মাহবুবুল আলম মিলন তার বার্ষিক রিপোর্ট পেশ করেন। এরপর বিদায়ী সেক্রেটারী দায়িত্বপ্রাপ্ত সেক্রেটারী রোটারিয়ান তানভীর আহমদ চৌধুরীর কাছে ক্লাব চার্টার হস্তান্তর করেন।

বিদায়ী প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান হানিফ মোহাম্মদ শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান মাসুদ আহমদ চৌধুরীর কাছে প্রেসিডেনশিয়াল কলার হস্তান্তর করেন এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মিটিং-এর ঘোষণা দেন। এরপর তিনি সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এবং বোর্ড অব ডিরেক্টর’স-এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষে প্রকাশিত ‘দি জালালাবাদ’ স্মারক -এর মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধান অতিথি এবং অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষে একটি প্রজেক্ট সম্পন্ন করা হয় দুইজন পঙ্গু ব্যক্তিকে কৃত্রিম পা সংযোজনে আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে। ২০১৭-১৮ বর্ষের বিভিন্ন কার্যক্রম প্রজেক্টরের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন সাবেক ক্লাব সেক্রেটারী রুমেল এম এস পীর।

অভিষেক অনুষ্ঠানে তিনজন নতুন সদস্যকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। রোটারিয়ান মিজানুর রহমান চৌধুরী, রোটারিয়ান সাইফুল ইসলাম চৌধুরী এবং রোটারিয়ান তানিশা রুমাকে রোটারি পিন পরিয়ে রোটারিতে অন্তর্ভূক্ত করেন অতিথিবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন রোটারিয়ান পিপি শফিক আহমদ বখত, সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। রোটারী প্রত্যয় পাঠ করেন ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান মতিউস সামাদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠানের শেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন রোটারিয়ান প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট ইঞ্জিনিয়ার শোয়েব আহমদ মতিন। অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান ছাড়া ক্লাব সদস্যদেরকে উপহার তুলে দেওয়া হয়।

অভিষেক অনুষ্ঠানে রোটারি সিলেট সুরমা জোনের ৪১টি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট, সেক্রেটারী এবং সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল