মানব পাচার মামলায় সোহেল সিকদার গ্রেফতার – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

মানব পাচার মামলায় সোহেল সিকদার গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৪:৩৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০১৬

মানব পাচার মামলায় সোহেল সিকদার গ্রেফতার

full_2063370617_1475334434৩০ অক্টোবর ১৬. রবিবার: সিলেট নগরীর ধোপাদিঘীর পূর্বপার হাবিব ভবনে আবস্থিত আল-হারামাইন ট্রাভেলন্স এন্ড ট্যুর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুহেল সিকদার টাউট শিকদার মানব পাচার ও জালিয়াতি মামলায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
সিলেট কোতোয়ারী থানা পুলিশের এসআই ইবাদ উল্লাহ এর নেতৃত্বে গত ২৩ অক্টোবর বিকাল সাড়ে ৪টায় অভিযান চালিয়ে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার করা হয় সুহেল সিকদার’কে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুহেল শিকদার বিভিন্ন লোককে বিদেশ নেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে টাকা আত্মসাত সহ জালিয়াতি, মানব পাচার অপরাধের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত রয়েছে। বিভিন্ন দেশে অবৈধভাবে লোক পাঠানোর নাম করে চেক ও পাসপোর্ট জব্দ করে সাধারণ গবীর অসহায় মানুষের কাছ থেকে শেষ সম্ভব ভিটা বাড়ি বিক্রি করার টাকা বিদেশে পাঠানোর নাম করে হাতিয়ে নিচ্ছে। এ সব মানুষ গুলো সব কিছু হারিয়ে গৃহহীন অবস্থায় পথে বসেছে। মানব পাচারকারী সোহেল বহুকাল যাবৎ বিভিন্ন সময়ে ক্ষমতাসীন দলের বিভিন্ন নেতা কর্মীদের নাম ভাঙ্গী জালিয়াতি ও মানব পাচারের কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। কোন ভাবে এই অসহায় মানুষ গুলোকে রেহাই দিচ্ছে না। তাদের কাছ থেকে নেওয়া চেক দিয়ে আদালতে মামলা করে অসহায় মানুষকে আসামী করে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। আর তার সকল অপকর্ম ধামাচাপা দিতে রয়েছে একটি অপরাধ চক্র।
এধরনের অভিযোগে গত ১৯ জানুয়ারীতে কেতোয়ালী থানাধীন কুমারপাড়ার বাসিন্দা আফরোজ মিয়ার পুত্র উজ্জ্বল আহমদ একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। যাহার নাম্বার ১২৬৫(০১)১৬। সাধারণ ডায়েরী সূত্রে জানা যায়, বিদেশে নেওয়ার নাম করে লিখিত চুক্তিপত্রের মাধ্যমে তার কাছ থেকে ১২,৫০,০০০/- ডাচ-বাংলা ব্যাংকের চ্যাক (যাহার নাম্বার ৩৭৫৪১৫৪) এবং পাসপোর্ট গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে চুক্তি বাস্তবায়ন না হলে তিনি চ্যাক এবং পাসপোট ফেরত চাইলে সোহেল সিকদার চেক ডিজনার মামলা দেওয়া সহ বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন।
এদিকে গত ১৯ জানুয়ারী ২০১৬ইং তারিখে তার বিরুদ্ধে কোতেয়ালী থানায় আরেকটি সাধারণ ডায়েরী করেন মাছিমপুরের জালাল উদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম। যাহাতে তিনি উল্লেখ করেন বিদেশে নেওয়ার নাম করে তার পাসপোর্ট অউ ০১২৮৫৭৬, অন্যান্য জরুরী কাগজ পত্র ও টাকা জব্দ করে রেখেছেন সোহের সিকদার।
এ বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর সিলেট মানব পাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়। যাহার নং ১০(৯)১৬। এই মামলায় সহ একাধিক মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সে বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে।
এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই এবাদউল্লাহ’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন এবং তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গুলোর তদন্ত চলছে বলে জানান।