যৌবন ফিরে পাচ্ছে সিসিকের ছড়া-খাল – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

যৌবন ফিরে পাচ্ছে সিসিকের ছড়া-খাল

প্রকাশিত: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৬

যৌবন ফিরে পাচ্ছে সিসিকের ছড়া-খাল

1318৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬, মঙ্গলবার: মানবসৃষ্ট জঞ্জাল-আবর্জনার স্তুপে মরতে বসেছিল নগরীর বলরামের খাল। স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল ছড়ার পানিপ্রবাহ। অল্প বৃষ্টিতে নিমজ্জিত হতো পথ-ঘাট। জলাদ্ধতায় সৃষ্টি হতো জনভোগান্তির।

অবশেষে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) সেই খালটি যৌবন ফিরে পাচ্ছে।

ছড়া-খাল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা প্রকল্পের আওতায় থাকা ১১টি ছড়ার একটি বলরামের খাল। ছড়ার আগের দুরাবস্থা যারা দেখেছেন, কেবল তারাই অনুমান করতে পারবেন। আবর্জনার ভাগাড় পরিচ্ছন্ন করায় ছড়াটি যৌবন ফিরে পেয়েছে- বললেন স্থানীয়রা।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, খালটি আবর্জনামুক্ত হওয়ায় নগরীর ২, ৪, ৫, ১৪ ও ১৬নং ওয়ার্ডের পানিপ্রবাহ স্বাভাবিক থাকবে।  ওই সব ওয়ার্ড দিয়ে বহমান ছড়াগুলোর যোগসূত্র রয়েছে বলরামের খালের সঙ্গে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শান্তনু দত্ত শন্তু বলেন, ১৪নং ওয়ার্ডের জামতলা এলাকা থেকে শুরু হয়ে ১৩নং ওয়ার্ড হয়ে তোপখানা এলাকা দিয়ে সুরমা নদীতে গিয়ে মিলেছে বলরামের খাল।  দৈর্ঘ্যে এক কিলোমিটার হলেও নগরীর ছড়া-খালের পানি নিস্কাশিত হয় এ খাল দিয়ে।

সিসিক সূত্র আরও জানায়, কারান্তরীণ আরিফুল হক চৌধুরী মেয়র থাকাবস্থায় ছড়া-খাল উদ্ধার ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শুরু হয়।  সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস  কিবরিয়া হত্যা মামলায় তিনি কারাগারে যাওয়ার পর বন্ধ হয়ে পড়ে কাজ।

তবে সেই স্তব্ধ কার্যক্রম প্রাণ ফিরে পায় উন্নয়ন প্রকল্পের টাকায়।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব বলেন, ‘জলাবদ্ধতা নিরসনে পাইলট প্রকল্পের আওতাধীন নগরীর প্রধান ১১টি ছড়া পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চলছে।  সেসব ছড়া নগরীর পানিপ্রবাহের প্রধান মাধ্যম। প্রায় ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ছড়াগুলোর উদ্ধার কাজ চলছে’।

‘এর আগে নগরীর জল্লারখালকে নতুন রূপ দেয় সিটি করপোরেশন। প্রায় ২০ বছর পর জল্লারখাল ছড়াটি উদ্ধারের পর ৫১২ ফুট দৈর্ঘ্যে ও ১২ ফুট প্রস্থে সম্পূর্ণ নতুনভাবে খনন কাজ করে সিটি করপোরেশন। ফলে ওই খালটিও যৌবন ফিরে পায়’- বলেন তিনি

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল