রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে আ.লীগ-পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে আ.লীগ-পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ

প্রকাশিত: ১০:০৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৮

রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে আ.লীগ-পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের রায়কে ঘিরে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃহস্পতিবার দফায় দফায় সরকারদলীয় লোক ও পুলিশের সঙ্গে বিএনপি কর্মী-সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে।

তকাল বেলা পৌনে ১২টায় গুলশানের বাসা থেকে বেগম খালেদা জিয়া রাজধানীর পুরান ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসায় স্থাপিত অস্থায়ী আদালতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। আদালতগামী বেগম জিয়ার গাড়িবহরকে ঘিরে তেজগাঁও সাত রাস্তা এলাকা থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মীর ঢল নামে। নেতাকর্মীরা গাড়িবহরের সঙ্গে রমনা থানার কাছে পৌঁছলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ইটপাটকেল ছুঁড়ে। এ সময় বিএনপি কর্মীরাও একইভাবে জবাব দেন। পরে গাড়িবহরটি কাকরাইল মোড়ে পৌঁছালে পুলিশ নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারশেল চার্জ করে। সেখানে বিএনপি কর্মীরা ইটপাটকেল ছুঁড়ে এর জবাব দেন। এ সময় কাকরাইল মসজিদের সামনে তিনটি মোটরসাইকেল ও একটি প্রাইভেটকারে আগুন দেয়া হয়।

পরে চানখাঁরপুল এলাকায় পৌঁছালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাকর্মীদের আটকে দেন। সেখান থেকে বেগম জিয়ার গাড়ি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের প্রটোকলে নিয়ে যাওয়া হয়। বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা ভেতরে যেতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। আইনজীবীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এ সময় পাশের গলি থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিএনপি কর্মীদের ওপর হামলা চালায়। শুরু হয় ত্রিমুখী সংঘর্ষ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে নেতাকর্মীদের ছাত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে। এ সময় বিএনপির কয়েকজনকে আটক করতে পুলিশ।

চট্টগ্রাম: এদিকে, গতকাল দুপুরে চট্টগ্রামে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বিএনপির নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত এবং এক নারী কর্মীসহ ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী জড়ো হন। এ সময় পুলিশ তাদেরকে সেখান থেকে সরিয়ে কার্যালয়ের ভেতরে ঢুকিয়ে দিতে চাইলে সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে পুলিশ নেতাকর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়।

ফেনী: ফেনীর রামপুর এলাকায় অতর্কিত হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় তারা কয়েকটি গাড়িতে ভাঙচুর চালায়। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। ফেনী মডেল থানা ও মহিপাল হাইওয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান নিয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

সিলেট: বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টায় সিলেট জেলার কানাইঘাটের গাছবাড়ি বিএনপির উদ্যোগে মিছিল শুরু হলে পুলিশ বাধা প্রদান করলে বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কানাইঘাট ও জৈন্তাপুর সার্কেল অফিসার আমিনুল ইসলাম এবং কানাইঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি আব্দুল আহাদ অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে অভিযান চালিয়ে মজনু, ফাহিম, মিজান নামে তিনকর্মীকে আটক করে।

এদিকে বৃহস্পতিবার সিলেট শহরে ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের গুলি বিনিময়ে অন্তত দুইজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ সময় একাধিক ছাত্রলীগ কর্মীকে প্রকাশ্যে অস্ত্র উচিয়ে প্রতিপক্ষের অবস্থান লক্ষ্য করে গুলি করতে দেখা গেছে। পুলিশ এখনো তাদের কাউকে আটক করতে পারেনি।

কিশোরগঞ্জ: কিশোরগঞ্জ শহরের আখড়াবাজার মোড় এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশের ছোড়া গুলিতে বিএনপির চারকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে শহরের আখড়াবাজার এলাকা থেকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রায়ের প্রতিবাদে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় আখড়া বাজার এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে। এছাড়াও বগুড়া, ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন স্থানে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ ও পুলিশের সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া ট্রেন ও বাসে আগুন দেয়ার খবরও জানা গেছে।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল