রাত পোহালে নির্বাচন: বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগরের ১৪ ইউপির নির্বাচন: বিদ্রোহী থাকায় আ.লীগে অস্বস্তি, নির্ভার বিএনপি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

রাত পোহালে নির্বাচন: বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগরের ১৪ ইউপির নির্বাচন: বিদ্রোহী থাকায় আ.লীগে অস্বস্তি, নির্ভার বিএনপি

প্রকাশিত: ৪:১২ অপরাহ্ণ, মে ২৭, ২০১৬

রাত পোহালে নির্বাচন:  বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগরের ১৪ ইউপির নির্বাচন: বিদ্রোহী থাকায় আ.লীগে অস্বস্তি, নির্ভার বিএনপি

nurul islam nahid up nirbachonসিলেটের বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগরের ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে অংশ নেওয়া চেয়ারম্যান ও সদস্য পদপ্রার্থীরা শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। তবে বেশি বিদ্রোহী থাকায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও নেতারা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। অন্যদিকে কম বিদ্রোহী থাকায় বিএনপির প্রার্থী ও নেতারা নির্ভার রয়েছেন।
বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দুই উপজেলার ১৪ ইউপিতে ২৮ মে ভোট গ্রহণ করা হবে। এসব ইউপিতে ৬৪ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১০ জন এবং বিএনপির পাঁচজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। দুটি দলের তৃণমূল পর্যায়ের ছয়জন ভোটার জানান, বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় দলীয় প্রার্থীদের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়তে হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী বলেন, ‘দলে বেশিসংখ্যক বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় আওয়ামী লীগ কিছুটা চিন্তিত। এ পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে এরই মধ্যে দুই উপজেলায় নয়জন বিদ্রোহী প্রার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া এসব প্রার্থীর পক্ষে যাতে কোনো কর্মী-সমর্থক কাজ না করেন, সেই নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।’
সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, ‘দলের কেউ কেউ দলীয়ভাবে মনোনয়ন না চেয়ে নির্বাচনে সুবিধা নেওয়ার জন্যই স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। তাই এঁদের ঠিক বিদ্রোহী প্রার্থী বলা যাবে না। আমাদের হিসাবে দুই উপজেলায় দুজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। ’
বালাগঞ্জ উপজেলার ছয় ইউনিয়নে ২৯ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ উপজেলার চার ইউপিতে আওয়ামী লীগের ছয়জন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। মাত্র একটি ইউপিতে বিএনপির একজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।
বালাগঞ্জ ইউপিতে আটজন প্রার্থী রয়েছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের আবদুল মতিন, বিএনপির আবদুল মুনিম ও জাতীয় পার্টির মোক্তার মিয়া নির্বাচন করছেন। এখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শেখ মো. মঞ্জুরুল ইসলাম ও বিএনপির শেখ জামাল আহমদ। পূর্ব গৌরীপুর ইউপিতে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত হিমাংশু রঞ্জন দাস এবং বিএনপি মনোনীত মুজিবুর রহমান রয়েছেন। এখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আজমল রউফ বেগ।বোয়ালজুড় ইউপিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী তিন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত আনহার মিয়া এবং বিএনপি মনোনীত মো. শেখ আলাউদ্দিন রয়েছেন। পূর্ব পৈলনপুর ইউপির পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের আবদুল মতিন, বিএনপির নজরুল ইসলাম ও জাতীয় পার্টির শেখ মো. শফিউল আলম নির্বাচন করছেন। এখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. ছান উল্লা।দেওয়ানবাজার ইউপির তিন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের আবদুল কাদির ও বিএনপির নাজমুল আলম নির্বাচন করছেন। পশ্চিম গৌরীপুর ইউপির পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের আমিরুল ইসলাম ও বিএনপির লুৎফুর রহমান নির্বাচন করছেন। এ ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তিনজন। এঁরা হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক নাসির উদ্দিন, সদস্য আজমল আলী ও আবদুর রহমান।
ওসমানীনগর উপজেলার আট ইউপিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৩৫ জন প্রার্থী। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের চারটি ইউপি ও বিএনপির চারটি ইউপিতে বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। গোয়ালাবাজার ইউপিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চারজন প্রার্থী। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মজনু মিয়া ও বিএনপির সৈয়দ কওছর আহমদ। এখানে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আতাউর রহমান। তাজপুর ইউপির চার প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অরুণোদয় পাল, বিএনপির ইমরান রব্বানী এবং জাতীয় পার্টির আশরাফ মিয়া নির্বাচন করছেন। এখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এনামুল হক পীর।
দয়ামীর ইউপির পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের আব্দুল হামিদ, বিএনপির এস টি এম ফখরউদ্দিন এবং জাতীয় পার্টির ছৈদুল ইসলাম। এখানে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী নুরউদ্দিন আহমদ। উসমানপুর ইউপির পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের মো. নেফা মিয়া, বিএনপির মুক্তার আহমদ ও জাতীয় পার্টির কাজী তুহেল আহমেদ নির্বাচন করছেন। এখানে মযনুল আজাদ ফারুক আওয়ামী লীগের ও ওলিউর রহমান বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী।উমরপুর ইউপিতে আওয়ামী লীগের গোলাম কিবরিয়া, বিএনপির এইচ এম রায়হান আহমদ এবং জাতীয় পার্টির প্রাথী আজিজুর রহমান। এখানে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুছ ছালাম।
সাদিপুর ইউপির চার প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের কবির উদ্দিন আহমদ, বিএনপির আবদুর রব ও জাতীয় পার্টির আবদুর মহিম এবং পশ্চিম পৈলনপুর ইউপির পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের শেরওয়ান আহমদ, বিএনপির কয়েছ আহমদ চৌধুরী ও জাতীয় পার্টির শেখ আবদুল মালিক নির্বাচন করছেন। এখানে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল হাফিজ। বুরুঙ্গাবাজার ইউপিতে আওয়ামী লীগ থেকে মকদ্দছ আলী এবং বিএনপি থেকে সাজ্জাদুর রহমান নির্বাচন করছেন।