রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিরোধিতা করে টিকে থাকা যাবে না – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিরোধিতা করে টিকে থাকা যাবে না

প্রকাশিত: ৫:১৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৬

রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিরোধিতা করে টিকে থাকা যাবে না

hanifরামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিরোধিতার ইস্যু খড়কুটোর মতো আঁকড়ে ধরে টিকে থাকতে চান খালেদা জিয়া। কিন্তু এতে তার শেষ রক্ষা হবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যর প্রতিক্রিয়ায় তিনি একথা বলেন। আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে হানিফ বলেন, ইতিমধ্যে জনগণ থেকে খালেদা জিয়া ও বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন। তাই জনগণের কিছুটা কাছে যাওয়ার জন্য আপনি নতুন একটা ইস্যু খোঁজার চেষ্টা করেছেন। সেই ইস্যুটা হচ্ছে রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র। খালেদা জিয়া আপনি ডুবন্ত মানুষের মতো খড়কুটো আঁকড়ে ধরে ভাসার যে চেষ্টা করছেন, এই রামপাল ইস্যু নিয়ে আপনার ভাসার কোনো সুযোগ নেই। আপনার রাজনীতি বহু আগেই ডুবে গেছে। আপনি নিজেই তা ডুবিয়ে দিয়েছেন। মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, সরকার তত্ত্ব-উপাত্ত বিশ্লেষণ করেই রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সেখানে পরিবেশের বিষয়টি গভীরভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করা হয়েছে। জনগণকে আশ্বস্ত করতে পারি—পরিবেশের ক্ষতি হয়, সুন্দরবনের ক্ষতি হয় এই ধরনের ভুল পদক্ষেপ এই সরকারের নেওয়ার সুযোগ নেই। কারণ আমাদের সরকার, জনগণের সরকার। আওয়ামী লীগকে পরিবেশবান্ধব সরকার অভিহিত করে তিনি বলেন, যে সরকারের প্রধানমন্ত্রী পরিবেশ রক্ষায় চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ পুরস্কারে ভূষিত হয়। সেই সরকার পরিবেশের ক্ষতি হয়, এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এদিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কাঁদার বিষয়ে হানিফ বলেন, ‘আপনার একজন কর্মী ঢাকায় রিকশা চালাচ্ছেন বলে আপনি আবেগতাড়িত হয়ে গেছেন। আপনার কি মনে আছে ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল আওয়ামী লীগের ২৬ হাজার নেতা-কর্মীকে হত্যা করা হয়েছিল। তখন আপনার মনে মানবাধিকার জেগে ওঠেনি। আপনাদের কর্মীরা তো ঢাকা রিকশা চালিয়ে বেঁচে আছেন। আর আমাদের ২৬ হাজার নেতা-কর্মীদের আপনাদের সন্ত্রাসীদের হাতে প্রাণ দিতে হয়েছে। খালেদা জিয়া এখন রামপাল ইস্যু নিয়ে ভারতবিরোধী অবস্থান নিয়েছে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে হানিফ বলেন, খালেদার জন্মই হয়েছে ভারতবিরোধী দিয়ে। পাকিস্তান কখনো ভারতের পক্ষে হতে পারে? খালেদা জিয়া তো পাকিস্তানের আইএসআইয়ের সৃষ্টি। এঁদের রাজনীতি ভারতবিরোধী। খালেদা জিয়া বহুবার প্রমাণ করেছেন তিনি পাকিস্তানের এজেন্ট। বিএনপি এখনো আইএসআইয়ের দ্বারা পরিচালিত। কিন্তু তখনই অবাক হতে হয়, যখন দেখা যায় ভোল পাল্টে তারা ভারতের পদলেহন করতে যায়, তখন মানুষের মনে বিভ্রান্ত সৃষ্টি হয়। রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে দলীয়ভাবে আরও তথ্য ও উপাত্ত জনগণের জানানো হবে বলে জানান হানিফ। সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিপু মনি, কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক আফজাল হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য এনামুল হক শামীম, আমিনুল ইসলাম, সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল