লকডাউন নিয়ে অপপ্রচার : পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে বিভ্রত নগরবাসী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

লকডাউন নিয়ে অপপ্রচার : পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে বিভ্রত নগরবাসী

প্রকাশিত: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

লকডাউন নিয়ে অপপ্রচার : পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে বিভ্রত নগরবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক
সিলেটে লকডাউন নিয়ে চলছে না অপপ্রচার। সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ বিভিন্ন ভাবে কেউ বলছেন আগামী কাল বৃহস্পতিবার থেকে সিলেটে লকডাউন কার্যকর হবে আবার কেউ বলছেন তা শনিবার থেকে হবে। এক দিকে করোনা ভাইরাসের কারণে চরম উদ্বেগ উৎকন্ঠা প্রত্যেকটি মুহুর্তে অতিবাহিত করছেন নগরবাসী অন্যদিকে লকাডাউন নিয়ে নানা অপপ্রচার। লকডাউন নিয়ে বুধাবার (১৭ জুন) সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন, সিলেটে লকডাউন করার কোন নির্দেশনা এখনও আসে নাই। সংক্রামনের দিক বিবেচনায় এলাকাকে রেড,ইয়োলো এবং গ্রীণ জোনে চিহ্নিত করার দায়িত্ব দেয়া হয়ে ছিলো সিভিল সার্জনকে। সিভিল সার্জন সেটি করে সংশ্লিষ্ট বিভাগে জমা দিয়েছেন। সরকারের উচ্চ কমিটি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহন করবে। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার অথবা শনিবার লকডাউন হচ্ছে এ ধরনের একটি খবর কে বা কারা ছড়িয়ে দিয়েছে সত্যিকার অর্থে এর কোন ভিত্তি নেই। এদিকে মঙ্গলবার নগর ভবনে সিসিক পর্ষদ ও সুশীল সমাজের বৈঠক বৃহস্পতিবারের পরিবর্তে আগামী শনিবার থেকে লকডাউন কার্যকর করার জন্য একটি প্রস্তাবনাও তৈরি করা হয়। এই প্রস্তাবনা লিখিত আকারে পেশ করে জেলা প্রশাসকের অনুমতি প্রদানের পর পরই লকডাউন কার্যকর করা হবে বলে বৈঠকে জানিয়ে দেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আর্কষণ করলে তিনি বলেন, তারা কোথা থেকে পেলেন বৃহস্পতিবারে লকডাইন হচ্ছে। আগে সরকারের কাছ থেকে সিদ্ধান্ত আসুক।
সিলেট সিটি করপোরেশনের ২৪টি ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ প্রস্তাব করে আগামী বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) থেকে লকডাউন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছিল। তবে গতকাল মঙ্গলবার রাতে সিলেট সিটি করপোরেশনে অনুষ্ঠিত সভায় আগামী ২০ জুন লকডাউন করার প্রস্তাব করা হয়। সাধারণ জনগণের সুবিধা-অসুবিধার কথা বিবেচনায় নিয়ে উপস্থিত ওয়ার্ড কাউন্সিলররা আগামীকাল বৃহস্পতিবারের পরিবর্তে আগামী শনিবার লকডাউন করার প্রস্তাব করলে সবার মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে তা সিদ্ধান্ত হিসেবে গৃহীত হয়। সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভার শুরুতে সদ্যপ্রয়াত সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের স্মরণে সবাই এক মিনিট নীরবতা পালন করে।
সভায় উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিদায়ক রায় চৌধুরী, সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল, কোতোয়ালি থানার সহকারী কমিশনার (এসি) নির্মলেন্দু চক্রবর্তী, শাহপরাণ থানার সহকারী কমিশনার (এসি) আফসর, সিটি করপোরশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম, প্রশাসনিক কর্মকর্তা হানিফুর রহমান, কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ, রাশেদ আহমদ, অ্যাডভোকেট সালেহ আহমদ সেলিম, আজাদুর রহমান আজাদ, শান্তনু দত্ত (সনতু), রেজাউল হাসান কয়েছ লোদী, মো. তারেক উদ্দিন তাজ, আফতাব হোসেন খান, রেবেকা আক্তার লাকী, এস এম শওকত আহমদ তৌহিদ, শাহানারা বেগম, মো. ছয়ফুল আমিন বাকের, সিকন্দর আলী, এবিএম জিল্লুর রহমান, ফরহাদ চৌধুরী শামীম, মোহাম্মদ তৌফিক বক্স লিপন, মোস্তাক আহমদ, বিক্রম কর, তৌফিকুল হাদী, মখলিছুর কামরান প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল