শিক্ষা ক্ষেত্রে ছেলেদের মনযোগী হবার আহবান: প্রধানমন্ত্রী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

শিক্ষা ক্ষেত্রে ছেলেদের মনযোগী হবার আহবান: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৭:০৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৬

শিক্ষা ক্ষেত্রে ছেলেদের মনযোগী হবার আহবান: প্রধানমন্ত্রী

hasineএইচএসসি পরীক্ষার ফল তুলনামূলক ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের ভালো উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘মেয়েরা এগিয়ে যাচ্ছে, ছেলেদের পিছিয়ে থাকলে চলবে না। আজকাল মেয়েরা মনোযোগ দিয়ে পড়ালেখা করছে, ছেলেদেরও পড়ালেখায় মনোযোগী হতে হবে।’

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হাতে পাওয়ার পর এক বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, দিনের পর দিন পরীক্ষার ফল উন্নত হচ্ছে। এতে আমরা খুশি। এখন মেয়েরা পরীক্ষায় ভালো করছে এতে আমরা আরও বেশি খুশি। আসলে ছেলে-মেয়ে আলাদা কিছু নয়, সবাই শিক্ষার্থী। তাদের শিক্ষার্থী হিসেবেই বিবেচনা করা উচিত।

শিক্ষার ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ সরকারের ভূমিকার কথা তুলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে আমরা ক্ষমতায় এসে দেখি শিক্ষার অবস্থা খারাপ। তখন আমরা শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ শুরু করি, বাজেট বৃদ্ধি করি। ফলে শিক্ষার মান বাড়ে, স্বাক্ষরতার হারও বাড়ে। আমরা স্বাক্ষারতা হার বাড়াতে পেরেছিলাম বলে ইউনেস্কো আমাদের পুরস্কার দিয়েছিলো।

তিনি আরো বলেন, আজ শিক্ষার সঙ্গে জড়িত সবাইকে অভিনন্দন জানাই। সঠিক সময়ে পরীক্ষা শেষ হয়েছে এবং নির্ধারিত সময়ের আগেই ফল প্রকাশ করা সম্ভব হয়েছে। এ জন্য আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করেছেন সবাই। তাই ফলাফল দিনের পর দিন উন্নত হচ্ছে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এইচএসসি (উচ্চ মাধ্যমিক) ও সমমানের পরীক্ষার ফল হস্তান্তর করা হয়। এবার সারাদেশে পাশের হার শতকরা ৭৪.৭০ শতাংশ। গত বছরের তুলনায় এবার পাশের হার বেড়েছে শতকরা ৫.১ শতাংশ। মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৮ হাজার ২৭৬ জন।

এর মধ্যে কুমিল্লা বোর্ডে পাসের হার ৬৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে এক হাজার ৯১২ জন।

দিনাজপুর বোর্ডে পাসের হার ৭০ দশমিক ৬৪ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে তিন হাজার ৮৯৯ জন।

রাজশাহী বোর্ডে পাসের হার ৭৫ দশমিক ৪০ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ছয় হাজার ৭৩ জন।

সিলেট বোর্ডে পাসের হার ৬৮ দশমিক ৫৯ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে এক হাহার ৩৩০ জন।

চট্ট্রগাম বোর্ডে পাসের হার ৬৪.৬০।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গণভবনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের উপস্থিতিতে আটটি সাধারণ বোর্ড, মাদ্রাসা বোর্ড ও কারিগরি বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফলাফলের কপি তুলে দেন। এরপর দুপুর একটায় শিক্ষামন্ত্রী সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করবেন বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে।

আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ডের অধীনে এ বছর ১২ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।

এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয় গত ৩ এপ্রিল। তত্ত্বীয় (লিখিত) পরীক্ষা ৯ জুন শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র কারণে ২২ মে’র এইচএসসি পরীক্ষা পিছিয়ে ১২ জুন নেওয়া হয়। ১১ থেকে ২০ জুনের মধ্যে হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা।

এই এইচএসসি ও সমমানের ফল থেকেই শিক্ষার্থীরা জিপিএ’র সঙ্গে বিষয়গুলোর নম্বরও জানতে পারবে বলে ইতোমধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।