শিশুশিক্ষায় সম্ভাবনার দ্বার খুলবে নবপ্রাণ অাইডিয়াল স্কুল – এফ এইচ ফারহান – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

শিশুশিক্ষায় সম্ভাবনার দ্বার খুলবে নবপ্রাণ অাইডিয়াল স্কুল – এফ এইচ ফারহান

প্রকাশিত: ২:২৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০১৭

শিশুশিক্ষায় সম্ভাবনার দ্বার খুলবে নবপ্রাণ অাইডিয়াল স্কুল – এফ এইচ ফারহান

শেখানোর জন্য নয়, শেখার উদ্দেশ্যে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার কচুয়াবহর-পালবাড়ীস্থ নবপ্রাণ অাইডিয়াল স্কুলে গমন। পরিচালক সাহেব, সম্মানিত অভিভাবকবৃন্দ এবং শ্রদ্ধেয় শিক্ষকদের সাথে কথা বলে যতটুকু বুঝলাম, অল্প সময়ের ব্যবধানে স্কুলটিকে যথেষ্ট প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়েছে। পর্যাপ্ত পৃষ্ঠপোষকতার অভাব থাকলেও থেমে নেই অাদর্শ মানুষ গড়ার অভিযান। স্থানীয় তরুণদের ঐক্যবদ্ধতার মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা স্কুলটির বর্তমান অবস্থা পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে বলা যায়, এলাকাবাসী কর্তৃক ভালো সাপোর্ট এবং সরকারি সহযোগিতা পেলে প্রতিষ্ঠানটি ভবিষ্যতে প্রকৃত জ্ঞানের অালোকে চারদিকে বিস্তৃত করবে। শিশুর ভবিষ্যৎ গঠনে মানসম্পন্ন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করার লক্ষ্যে নবপ্রাণ অাইডিয়াল স্কুলের রয়েছে বছরব্যাপী নানা কার্যক্রম। শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের নয়, অভিভাবকদের সচেতনতা বৃদ্ধিতেও রয়েছে নিয়মিত অালোচনা পর্যালোচনা। অার্থিক সমস্যা থাকা সত্ত্বেও স্কুলটি অনেক দরিদ্র শিক্ষার্থীদের শিক্ষা খরচের ভার বহন করছে, বিষয়টি সত্যিকার অর্থেই প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য। প্রভাবশালীদের সহায়তায় স্কুলটির পরিবেশ এবং কাঠামোভিত্তিক উন্নয়ন সম্ভব। শিক্ষার্থীরা যেমন কৌতূহলী, শিক্ষকদের মধ্যেও তেমন প্রকৃত শিক্ষাকে মূল্যায়ন করার সদিচ্ছা রয়েছে। পড়ালেখার পাশাপাশি নিয়মানুবর্তিতা, খেলাধুলা,স্কাউট, বিতর্ক, ধর্মীয় এবং সামাজিক মূল্যবোধ, সাহিত্য -সংস্কৃতি চর্চা, চরিত্র গঠন সহ শিশুমনের মান উন্নয়নে সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখার চেষ্টা করছে স্কুলটি। মানবতা, সত্যবাদিতা, দেশপ্রেম, শিশুর সুপ্ত প্রতিভার খোঁজ এবং তার বিকাশের ক্ষেত্রে বন্ধুসুলভ অাচরণের মাধ্যমে প্রত্যেকটি শিশুর সাথে শিক্ষকদের সম্পর্ক অত্যন্ত সুমধুর। শিক্ষকরা মনে করেন, প্রকৃত মেধা অনুসন্ধান এবং তার মূল্যায়নের মাধ্যমে শিশুদেরকে মনুষ্যত্বলোকে নিয়ে যায় সম্ভব। পাশাপাশি উন্নত রাষ্ট্র গঠনে সৃজনশীলতার ওপর জোর দিয়ে প্রকৃত মেধার অনুসন্ধান এবং তার মূল্যায়ন ব্যতীত বিকল্প কোনো পথ নেই। প্রতিষ্ঠানের বিশ্বাস, সঠিক শিক্ষায় শিশুদের কৌতূহলী মনের ভিত্তিকে মজবুত করে গড়ে তোলতে পারলে তাদের প্রচেষ্টা শিশুশিক্ষায় সম্ভাবনার নতুন দ্বার খুলবে এবং এই শিশুরাই একসময় বিজ্ঞান তথা সমগ্র বিশ্বকে অালোকিত করবে। সেইসাথে শিশুদের জাতির অাদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রাতিষ্ঠানিক বিভিন্ন দিকগুলোকে পজিটিভ ওয়েতে সাজানোর প্রচেষ্টা রয়েছে প্রতিনিয়তই। সকলের সহযোগিতা পেলে সুনাগরিকের ভিত্তি গঠন সহ এলাকার গৌরব বৃদ্ধিতে স্কুলটি বেশ ভালো ভূমিকা রাখতে পারবে।
উল্লেখ্য, স্কুল সীমার বাইরে রাজনৈতিক সমস্যা থাকতেই পারে। কিন্তু সীমা ভেদ করে যদি তা স্কুলের ছোট্ট সোনামণিদের সমস্যার কারণ হয়, তাহলে বাড়াবাড়ির ফলাফল ব্যতিক্রমধর্মী হওয়াটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়। ছাত্রসমাজের একজন হিসেবে সাধ্যানুযায়ী অামি ছোট্ট সোনারমণিদের পাশে থাকতে ইচ্ছুক। অাপনি থাকবেন তো?
লেখক: মো. ফয়েজুল হাসান ফারহান
ছাত্র সংগঠক