শুরু হচ্ছে সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ: ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের চুক্তি সই – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

শুরু হচ্ছে সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ: ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের চুক্তি সই

প্রকাশিত: ১১:৫০ পূর্বাহ্ণ, জুন ১, ২০১৬

শুরু হচ্ছে সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ: ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের চুক্তি সই

bolagongngদীর্ঘ অপেক্ষা আর জনদুর্ভোগের পর অবশেষে শুরু হচ্ছে সিলেট বিমানবন্দর-সালুটিকর-কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ। সরকারের অর্থায়নে প্রায় ৪৪২ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রায় ৩২ কিলোমিটার দীর্ঘ এই মহা সড়কের নির্মাণকাজ শুরুর লক্ষ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের চুক্তি সই হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার হোটেল রেডিসনে মহাসড়কে উন্নীত করার লক্ষ্যে চুক্তি স্বাক্ষর করে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগ ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্পেকট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড। চুক্তি অনুযায়ী ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারীতে কাজ শেষ হবে।
চুক্তিপত্রে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের সিলেট জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক ইফতেখার কবির এবং ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খান মোহাম্মদ আফতাব উদ্দিন নিজ নিজ পক্ষে চুক্তি পত্রে স্বাক্ষর করেন।
এ সময়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ উপস্থিত ছিলেন।
এ সময়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, প্রায় ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকার আসন্ন বাজেটে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাত অগ্রাধিকার পাচ্ছে। তবে সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ থাকছে পরিবহন খাতে। এরপরই জ্বালানী ও শিক্ষা খাত।
তিনি বলেন, সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়ক দিয়ে পাথর পরিবহন করা হয়। তাই সড়কটিকে মজবুত করে নির্মাণ করতে হবে। যে কোনো সড়ক-মহাসড়ক নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার পর থেকে পরবর্তী তিন বছর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব থাকবে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের ওপর। এ বিষয়টি সরকার নিশ্চিত করতে চায়।
সড়কটির উন্নয়নকাজ চুক্তি অনুযায়ী ৩৪ মাসের মধ্যে শেষ করার ওপর গুরুত্বারোপ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, জাতীয় স্বার্থে এ সড়কের প্রয়োজনীয় বরাদ্দ নিশ্চিত করা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নকালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাজের গুণগত মান নিশ্চিত করার বিষয়ে খোঁজখবর রাখার পরামর্শ দেন মন্ত্রী।
সড়ক উন্নয়নে সই হওয়া দু’টি প্যাকেজ এর চুক্তিমূল্য ৪১৫ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এর আওতায় প্রায় ৩০ কিলোমিটার সড়ক বাঁধ, ১৩ কিলোমিটার সড়ক রিজিড পেভমেন্ট, ১৭ কিলোমিটার ফ্লেক্সিবল পেভমেন্ট, ১টি সেতু ও ২টি কালভার্ট, প্রায় ৩০ কিলোমিটার. ফুটপাতসহ ড্রেন নির্মাণ এবং অন্যান্য কার্যাদি সম্পন্ন করা হবে।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মাঝে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান, এমরান আহম্মেদ এমপি, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিক, জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত ড. একেএ মোমেন, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ইবনে হাসান আলম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল