শ্রীমঙ্গলে দুদক এর গনশুনানি জনগণেত মুখোমুখি ১১ সরকারি বিভাগ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

শ্রীমঙ্গলে দুদক এর গনশুনানি জনগণেত মুখোমুখি ১১ সরকারি বিভাগ

প্রকাশিত: ৯:৪৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৭, ২০১৬

শ্রীমঙ্গলে দুদক এর গনশুনানি জনগণেত মুখোমুখি ১১ সরকারি বিভাগ

দূর্ণীতি দমন কমিশন (দুদক) এর চলমান গনশুনানি কার্যক্রমের অধীনে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের ১১ টি সরকারি বিভাগকে জনগণের মুখোমুখি হ্যে গনশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল সোমবার ৯ টা থেকে দুপুর ৩ টা পর্যন্ত শ্রীমঙ্গলস্থ জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ গনশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দুদক এর কমিশনার ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ। মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ তোফায়েল ইসলাম এর সভাপতিত্বে ও সুজন সহ সমন্বয়কারী শাহ আরিফ আলী নাসিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মোঃ শাহজালাল, টিআইবি সিভিক এনগেজমেন্ট বিভাগের পরিচালক উমা চৌধুরী, শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান রণধীর কুমার দেব। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন দুদক সিলেট বিভাগের পরিচালক শিরীন পারভিন, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শহীদুল হক, শ্রীমঙ্গল সনাক সভাপতি সাংবাদিক সৈয়দ নেসার আহমদ ও দুপ্রক সহসভাপতি ডা: হরিপদ রায়।
দুদক এবং টিআইবির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত শ্রীমঙ্গলের কার্যক্রমের বাস্তবায়ন করেছে যৌথ ভাবে দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি ও সচেতন নাগরিক কমিটি শ্রীমঙ্গল।
এর আগে গনশুনানির আগে দুদক কমিশনার এর নেতৃত্বে এক শোভাযাত্রা ও মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন সনাক ও দুপ্রক এর সদস্যবৃন্দ, সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারী, সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ। র‍্যালি ও মানববন্ধন শেষে মৌোলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ তোফায়েল ইসলাম এর সঞ্চালনায় গনশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। গনশুনানির জন্য শ্রীমঙ্গল এর ভূমি অফিস, সাব রেজিস্টার অফিস, পি আই ও অফিস, শ্রীমঙ্গল হাসপাতাল, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস, প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, সমাজসেবা অফিস, হিসাবরক্ষক অফিস, সেটেলমেন্ট অফিস, সমবায় অফিস ভ, এবং পল্লী বিদ্যুৎ তালিকাভুক্ত ছিল। এসব অফিসের মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক (১৬ টি) অভিযোগ পড়েছিলো শ্রীমঙ্গল ভূমি অফিসের বিরুদ্ধে। একটি অভিযোগও পড়ে নাই এমন বিভাগের সংখ্যা ৩ টি। গনশুনানির জন্য নির্বাচিত বিভাগীয় প্রধানদের মুখোমুখি বসে অভিযোগকারীরা একে একে তাদের অভিযোগ উত্থাপন করেন। এবং অভিযোগ নিস্পত্তির জন্য সর্বোচ্চ সময় সীমা উল্লেখ করে অভিযোগের জবাব দেন সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় প্রধানগন।
সমাপনি বক্তব্যে দুদক কমিশনার ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ অভিযুক্ত কয়েক ব্যক্তির নাম উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বিভাগীয় প্রধানদের নির্দেশ দেন। এছাড়াও ২০১৭ সালের মধ্যে অন্তত পক্ষে একটি সরকারি বিভাগকে দূর্নীতি মুক্ত বিভাগ হিসেবে তৈরি করার আহবান জানান তিনি।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল