সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে কাজ করে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মোস্তফা আহসান হাবিব – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে কাজ করে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মোস্তফা আহসান হাবিব

প্রকাশিত: ১২:৩৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ২০, ২০২০

সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে কাজ করে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মোস্তফা আহসান হাবিব
হাবিবুর রহমান নাসির, ছাতক
সবার সুখে হাসব আমি কাঁদব সবার দুখে। পল্লীকবি-জসীম উদ্দীনের কবিতার চরিত্রের সেই মানুষটিকে খুজে পেয়েছে ছাতকবাসি।নিজের জীবনের মায়া ভুলে এই করোনা কালীন সময়ে মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে কাজ করে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তিনি।মানবতার ফেরিওয়ালা মোস্তফা আহসান হাবিব। তিনি ইউআরসি ইন্সট্রাকটর ছাতক ।করোনা ভাইরাস সংক্রমণে থমকে গেছে সারা পৃথিবী। বিশ্বের মানুষ অসহায় হয়ে পরছে। বাংলাদেশ ও ব্যাতিক্রম নয়। বাংলাদেশের মানুষদের জন্য প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন সরকার,ডিসি,এসপি, ইউএনও , পুলিশ। যার যার অবস্থান থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে যাচ্ছেন। মানুষ মানুষকে সাহায্য করবে, এটাই তো নিয়ম। কিন্তু মানুষের এই দুঃসময়ে একজন মানবতার ফেরিওয়ালা তিনি কি ঘরে বসে থাকতে পারেন! মোটেও না,ভয়কে সাহস যুগিয়ে নিজের ভালোবাসা নামক সম্বল টুকু নিয়ে নেমে যান ছাতকের মাটে ঘাটে। দেশের মানুষ যখন অসচেতন, লকডাউন বুুুঝেনা হাটে-ঘাটে ঘুরে বেড়াচ্ছে তখন তিনি অনেক চিন্তা ভাবনা করেন একটি হ্যান্ড মাইক এর জন্য।উনার উদ্দেশ্য ছিল, একটি হ্যান্ড মাইক পেলে অলিতে গলিতে মাইকের মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করবেন। কয়েক জনের কাছে তিনি ধার চেয়েছিলেন কিন্তু কোথায়ও পাননি। তিনি কারও হাতের দিকে তাকিয়ে থাকার মানুষ কিন্তু নন।নিজে একটি হ্যান্ড মাইক কিনে বেরিয়ে পড়েন সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ডে।এ কাজটি তিনি যখন শুরু করেন তখন বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৭০/৮০ জনের মতো।এ থেকে ছুটে চলেছেন নগর বন্দর, অলিতে গলিতে, মানুষকে সচেতনতার বাণী শোনাচ্ছেন,ধরছেন হাতে-পায়ে। প্রশ্ন করেছিলাম আপনি কেন হাতে পায় ধরছেন? তিনি আমাকে বিশ্বের কয়েকটি দেশের (আমেরিকা, ইতালি, স্পেন) অবস্থা উল্লেখ করে বলেন তারা কত সচেতন তারপরেও তাদের এই করুণ পরিণতি! আমাদের কি হবে? এই প্রশ্ন যখন আমার কাছে ছুড়ে দিলেন তখন আমি চিন্তা করলাম সত্যিই তো আমাদের দেশের মানুষ অসচেত। উনার একটি মাত্র কথা, সচেতনতাই সব।আসুন আমরা সবাই মিলে সতর্ক থাকি। নিজে সচেতন হই, নিজের ফ্যামিলিকে সচেতন করি। মহাবিপর্যয় আমরা সহ্য করতে পারবো না! তাই সচেতনতাই হচ্ছে আমাদের একমাত্র কাজ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল