সনাতন ধর্মালম্বীদের মাঝে পুজার আমেজ কানাইঘাটের প্রতিটি মন্ডপে প্রতিমা তৈরীর কাজ সম্পন্ন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সনাতন ধর্মালম্বীদের মাঝে পুজার আমেজ কানাইঘাটের প্রতিটি মন্ডপে প্রতিমা তৈরীর কাজ সম্পন্ন

প্রকাশিত: ৭:৪৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০

সনাতন ধর্মালম্বীদের মাঝে পুজার আমেজ কানাইঘাটের প্রতিটি মন্ডপে প্রতিমা তৈরীর কাজ সম্পন্ন

আমিনুল ইসলাম কানাইঘাট
মাত্র একদিন পর ষষ্ঠীপূজার মধ্যে দিয়ে শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পুজা। তবে এবার উৎসবকে বাদ দিয়ে শুধু পুজাই হবে এমন নির্দেশনা রয়েছে প্রতিটি মন্ডপে। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী এবার কানাইঘাট উপজেলার ৩২টি মন্ডপে শারদীয় দূর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল সোমবার সরেজমিনে পৌরসভার উষারঞ্জন দেবের বাড়ির পুজা মন্ডপ, রায়গড় গ্রামের বিল্পব কান্তি দাসের বাড়ির পূজা মন্ডপ ও রামপুর গ্রামের বাবুল দাসের বাড়ির পুজা মন্ডপ সহ বেশ কয়েকটি মন্ডপ ঘুরে দেখা যায় ইতিমধ্যে তাদের মন্ডপে প্রতিমা তৈরী সহ রং করার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। কেবল মাত্র সাজসজ্জার কিছুটা কাজ বাকি থাকলেও আজ মঙ্গলবারের মধ্যে তা শেষ করা হবে বলে জানিয়েছেন মন্ডপের দায়িত্বশীলরা। জানা যায় শাস্ত্র মতে মা দূর্গা এবার কৈলাস থকে পিত্রালয় বসুন্ধরায় আসছেন পালকি চড়ে। দেবীর বাহন সিংহের পিঠে চড়ে দুর্গা দেবী আসছেন মাত্র একদিন পর। সঙ্গে নিয়ে আসছেন গণেশ, কার্তিক, লক্ষী আর সরস্বতীকে। আসছেন তারা ভক্তদের শুভবুদ্ধির পথ দেখাতে। অসুর শক্তির বিরুদ্ধে সুর শক্তির চেতনা জাগাতে। এরপর ৫ দিনের শারদীয় দূর্গা পূজা শেষে বিজয়া দশমীতে মা দুর্গা এই মর্ত থেকে কৈলাস যাবেন ঘোড়ায় চড়ে। এমনটাই মনে করে কানাইঘাটের সনাতন ধর্মালম্বী লোকদের মাঝে দুর্গাপুজার সাজ সাজ রব বিরাজ করছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ভজন লাল দাস জানান মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক তারা এবার শারদীয় দুর্গা পুজার উৎসবকে বাদ দিয়ে শুধুই পুজা করবেন। কানাইঘাট উপজেলায় মোট ৩২টি মন্ডপে এবার দুর্গাপূজা হবে। সেই লক্ষে প্রতিটি মন্ডপে প্রতিমা তৈরীর কাজ সহ প্রায় সকল কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। আংশিক কিছু কাজ বাকি থাকলেও তা আজকের মধ্যে শেষ করা হবে। এদিকে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম জানান শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রতিটি মন্ডপে পুলিশের পক্ষ থেকে নিñিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি প্রতিটি মন্ডপে আইডিকার্ডধারী স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী কাজ করবেন। তিনি পুলিশের পক্ষ থেকে শালীন আচরণের ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রতিনিধিদের সহযোগীতা কামনা করেন। এবং বিজয়া দশমীতে রুট অনুসরণ করে সূর্যাস্তের পূর্বেই প্রতিমা বিসর্জন করার জন্য আয়োজকদের প্রতি অনুরুদ করেন।

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল