‘সমাবেশ ঘিরে বিএনপির ৪০০ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার’ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

‘সমাবেশ ঘিরে বিএনপির ৪০০ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার’

প্রকাশিত: ৪:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৮

‘সমাবেশ ঘিরে বিএনপির ৪০০ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভা ঘিরে গত শনিবার রাত থেকেই ঢাকা মহানগরীসহ আশপাশের জেলাগুলোতে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাসায় বাসায় পুলিশ তল্লাশি করেছে। বিএনপির চার শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সোমবার (১ অক্টোবর) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। এসময় তিনি গ্রেপ্তার নেতাকর্মীদের তালিকা প্রকাশ করেন।

রুহুল কবীর রিজভী বলেন, গতকাল (শনিবার) বিএনপির জনসভা মহাসাগরে পরিণত হয়। চারদিক থেকে ধেয়ে আসা জনস্রোতে সোহরাওয়ার্দীর বিশাল প্রান্তর কানায় কানায় ভরে যায়। রমনা পার্কসহ আশপাশের রাস্তাঘাট, মোড় ও ফুটপাত মিটিং শুনতে আসা মানুষে ঠাসা ছিল। শাহবাগ, কাকরাইল, মৎস্যভবন এলাকা সংলগ্ন এলাকায়ও ছিল উর্মিমালার মতো জনতার ঢেউ। অথচ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব তার প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, বিএনপির সমাবেশের উপস্থিতি প্রমাণ করে বিএনপির জনপ্রিয়তা কমেছে। এর উত্তরে নীরব হাসি ছাড়া আর কিইবা বলতে পারি।

তিনি আরও বলেন, দল হিসেবে আওয়ামী লীগের এখন হতভাগ্য দেউলিয়াগ্রস্ত রাজনীতি। সে জন্যই খাপছাড়া কথা বলছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। জনসভায় বিপুল সমাগম দেখে সরকারের কাঁপুনি ধরে গেছে, সে জন্যই বিএনপি নেতাকর্মীদের ব্যাপক হারে গ্রেপ্তারকে সরকার রক্ষাকবচ মনে করছে। এ জনসভা ঘিরে বিএনপির চার শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিএনপির এ নেতা আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার ও বিপুল পরিমাণ চাঁদাবাজির টাকা খরচ করেও সমাবেশে মানুষ আনতে পারেন না। অথচ বিএনপির সমাবেশে পথে পথে সরকারি দলের বাধার মুখেও বিপুল মানুষের সমাগম হয়। এতে তারা হতাশ হয়ে প্রলাপ বকছেন। একতরফা নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে আওয়ামী নেতারা কত তামাশা দেখাচ্ছেন আর কত যে উদ্ভট কথা বলছেন তার শেষ নেই।

তিনি অভিযোগ করেন, বিএনপির জনসভা ঘিরে ঢাকার ভেতরে ও আশপাশের বিভিন্ন পয়েন্টে গণপরিবহন বন্ধ করে দেয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। বিএনপি নেতাকর্মীদের সন্দেহ করে পথে পথে বাধা দিয়েছে তারা। মারধরের ঘটনাও ঘটেছে। সকাল থেকেই ঢাকা মহানগরীর প্রবেশ পথ আগলে রাখে পুলিশের পাশাপাশি আওয়ামী ক্যাডাররা। গত শনিবার রাত থেকেই ঢাকা মহানগরীসহ আশপাশের জেলাগুলোতে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাসায় বাসায় চলে পুলিশি তল্লাশি। ভোরেই আওয়ামী ক্যাডাররা বাস কাউন্টার থেকে কর্মচারী ও গাড়ি সরিয়ে দিয়ে সারাদিন বাস সার্ভিস বন্ধ রাখে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়ে সাধারণ মানুষ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন, তাইফুল ইসলাম টিপু প্রমুখ।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল