সম্পর্ক যখন ননদ-ভাবী! – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সম্পর্ক যখন ননদ-ভাবী!

প্রকাশিত: ৩:৫১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০১৬

সম্পর্ক যখন ননদ-ভাবী!

অপরাজিতা ডেস্ক: বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, ননদ-ভাবীর সম্পর্কটা কখনই ভালো হয় না। পরে এর প্রভাবটা সংসারে পরে নানা অশান্তি বাড়ে। কাজেই ননদ-ভাবীর সম্পর্কটা এমন হওয়া উচিত যাতে নতুন একটা পরিবেশে এসেও নারীরা একটা নিরাপদ আশ্রয় খুঁজে পায়। আসলে ননদ-ভাবীর সম্পর্ক হওয়া উচিত সহানুভূতির, সহমর্মিতার এবং বন্ধুত্বের। ননদ-ভাবীর সম্পর্ক যেমন হওয়া উচিত-

* সাহায্যের হাত বাড়ান: কথায় আছে না, দশের লাঠি একের বোঝা। সংসারের কাজগুলো একা করতে গেলে যে কোন নারীকেই অনেক বেগ পেতে হয়। সেক্ষেত্রে ননদ যদি একটুখানি সাহায্য করে তাহলে সব কাজ সহজেই করা সম্ভব। একসঙ্গে থাকতে গেলে একে অন্যের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। তাতে দুজনার মধ্যে সম্পর্কটাই শুধু মধুর হবে না, সংসারে শান্তি আসবে।

* বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করুন: ননদরা যে কোন বিষয় অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করতে না চাইলেও কিন্তু ভাবীদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন। এ কাজটা যত বেশি করবেন ততই আপনাদের মধ্যে সম্পর্ক ভালো হবে। আপনারা ততই ভালো বন্ধু হয়ে উঠবেন। তখন সম্পর্কটাও অনেক বেশি সহজ হবে।

* ভালো দিকটি দেখুন: ভালো খারাপ মিলিয়েই মানুষ। কাজেই ননদ-ভাবী দুজন দুজনের খারাপ দিকটা এড়িয়ে ভালো দিকটা দেখার চেষ্টা করুন। তাতে সম্পর্কটা বন্ধুত্বপূর্ণ হবে।

* ভুলত্রুটি নিয়ে বসে থাকবেন না: মানুষ মাত্রই ভুল। কাজেই কেউ কারও ভুল নিয়ে বসে থাকবেন না। বরং একে অপরের দিকটা বুঝে ক্ষমা করে দেওয়ার চেষ্টা করুন।

* বোঝার চেষ্টা করুন: সংসারে শুধু নিজের কথা ভাববেন না, বরং পরিবারের সকলের কথা মাথায় রেখে কাজ করুন। কখন কার কি প্রয়োজন সে অনুযায়ী দুজনই নিজেদের সুযোগ সুবিধামতো গুছিয়ে নিন। দুজনের কোথায় সমস্যা হচ্ছে তা বোঝার চেষ্টা করুন। দেখবেন তাতে সম্পর্ক আরও ভালো হবে।

* বাড়ির মেয়ে ভাবুন: আলাদা পরিবারের মেয়ে হয়েও ননদ-ভাবী একই পরিবারে একসঙ্গে থাকছেন। কাজেই ননদের উচিত ভাবীকে নিজের পরিবারের একজন সদস্য মনে করা। তাহলে দুজনের মধ্যে বোঝাপড়াটা আরও ভালো হবে।

* সুযোগ-সুবিধার দিকে খেয়াল রাখুন: যে কোন কাজে একে অপরের সুযোগ-সুবিধার দিকে খেয়াল রাখার চেষ্টা করুন। সবসময় তাকে মানসিক সাপোর্ট দেওয়ার চেষ্টা করুন। এতে করে নিজেদের পাশাপাশি পরিবারের বন্ধনও মজবুত হবে।