সরকারের কি লজ্জা নেই: বি চৌধুরী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সরকারের কি লজ্জা নেই: বি চৌধুরী

প্রকাশিত: ২:৫০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৯, ২০১৭

সরকারের কি লজ্জা নেই: বি চৌধুরী

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, ‘সরকারের সব পর্যায়ে এখন লুটপাট চলছে। মৃত্যুর আগে সুন্দর বাংলাদেশ দেখে যেতে চাই। লুটপাটের বাংলাদেশ নয়। বুকে হাত দিয়ে এ সরকার বলতে পারবে না গুম, খুন, হত্যা, ধর্ষণ আগের চেয়ে কমেছে। সরকারের কি এসব দেখে লজ্জা লাগে না। তাদের কি মা-বোন নেই? নাবালক শিশু পর্যন্ত ধর্ষিত হয়। এগুলো দেখে এখন লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়।’

মঙ্গবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিকল্পধারা, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি ও নাগরিক ঐক্য আয়োজিত সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বাম দলগুলোর ডাকা হরতালের প্রতি সমর্থনও জানান এ প্রবীণ নেতা।

গত ২৩ নভেম্বর বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম গড়ে ৩৫ পয়সা বা ৫ দশমিক ৩ শতাংশ বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে। যা ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হবে বলে জানানো হয়।

জনগণের দাবি তুচ্ছ করে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে দাবি করে তিনটি বামদল আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দেশব্যাপী হরতালের ডাক দিয়েছে।

বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি অযৌক্তিক ও এতে জনজীবন বিপর্যস্ত হবে। বিদ্যুতের দাম বাড়ার কারণে সবকিছুর দাম বেড়ে যাবে। বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি নয় বরং কমানো উচিত। এ সরকার সংবেদনশীল সরকার না। এরা জনগণের দুঃখ বোঝে না। কারে বেতন বাড়ানোর কারণে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়নি। ঘুষ খাওয়ার জন্য বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে সরকার মানুষের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। এ দাম না কমালে সরকারের প্রতি মৃত্যু পরোয়ানা জারি হবে।’

বিকল্পধারার সভাপতি বলেন, ‘দুঃখ লাগে যখন শুনি পেঁয়াজের কেজি ১০০ টাকা, চালের কেজি ৮০ টাকা- এমন বাংলাদেশ তো দেখতে চাই না।’

সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘এই বয়সেও আমাকে রাজপথে নামতে হচ্ছে। কেননা ভবিষ্যৎ প্রজন্ম আমাদের ক্ষমা করবে না যদি এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে চুপচাপ বসে থাকি।’

বামদলগুলোর ডাকা হরতালকে সমর্থন করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘দেশে এখন তুঘলকি কাণ্ড চলছে। বিদ্যুতের দাম নিয়ে গণশুনানির আয়োজন করে সরকার এক ধরনের ফাজলামি করে। কিন্তু কারও কথা শোনে না। আমি ব্যক্তিগতভাবে হরতালের রাজনীতিকে সমর্থন করি না। তবে এসব পরিপ্রেক্ষিতে হরতাল শত শত দিন হওয়া উচিত।’