‘সরকার আমন ধান কিনবে প্রতি কেজি ২৬ টাকা করে’ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

‘সরকার আমন ধান কিনবে প্রতি কেজি ২৬ টাকা করে’

প্রকাশিত: ৬:২৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০১৯

‘সরকার আমন ধান কিনবে প্রতি কেজি ২৬ টাকা করে’

আগামী ২০ নভেম্বর থেকে সরকারের আমন সংগ্রহ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির (এফপিএমসি) প্রধান খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি বলেছেন, এ বছর ধানের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে প্রতি কেজি ২৬ টাকা । প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ৬ লাখ মেট্রিক টন ধান, ৩ লাখ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল এবং ৫০ হাজার মেট্রিক টন আতপ চাল ক্রয় করা হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে এফপিএমসির বৈঠক শেষে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে তিনি এসব তথ্য জানান। বৈঠকে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী ২০ নভেম্বর থেকে সারা দেশের প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে আমন ধান সংগ্রহ শুরু হবে। প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে ৬ লাখ মেট্রিক টন ধান, ৩ লাখ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল এবং ৫০ হাজার মেট্রিক টন আতপ চাল ক্রয় করা হবে। এ বছর ধানের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে প্রতি কেজি ২৬ টাকা । সিদ্ধ চাল ৩৬ টাকা আর আতপ চাল ৩৫ টাকা দরে মিলারদের কাছ থেকে কেনা হবে। ২৮ ফেব্রুয়ারি ধান-চালের সংগ্রহ শেষ হবে।

সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আগামী ১০ নভেম্বর প্রান্তিক চাষিদের তালিকা তৈরি শেষ হবে। তালিকায় কৃষক বেশি হলে লটারির মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে। শুধু তাই নয়, যেসব কৃষক নাম দেবেন, তারা প্রকৃত প্রান্তিক চাষি কি-না, তা মাঠপর্যায়ে অনুসন্ধান চালিয়ে দেখা হবে। এ বিষয়টি আমাদের আজকের বৈঠকের নীতিগত সিদ্ধান্ত।

কৃষিমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, এ বছর ১ কোটি ৫৩ লাখ মেট্রিক টন ধান উৎপাদিত হবে। বর্তমানে মজুদ আছে ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪৭ মেট্রিক টন চাল।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী বলেন, সারের দাম কমানোর বিষয়টি নিয়ে সরকার চিন্তা-ভাবনা করছে। এতে করে কৃষকদের উৎপাদন ব্যয় কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।

পেঁয়াজের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজের উৎপান বাড়ানোর বিষয়টিকে আমরা বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। এ বিষয়ে আগামীতে প্রণোদনার অর্থ বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, পেঁয়াজের ফলন যখন ওঠা শুরু হবে, তখন আমদানি বন্ধ করে দেয়ার চিন্তা-ভাবনা করছি। কারণ এতে করে কৃষকরা পেঁয়াজের ভালো দাম পাবেন।