সরকার পিছিয়ে পড়া মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে কাজ করে যাচ্ছে –এমপি কেয়া চৌধুরী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সরকার পিছিয়ে পড়া মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে কাজ করে যাচ্ছে –এমপি কেয়া চৌধুরী

প্রকাশিত: ৬:৩১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৬, ২০১৭

সরকার পিছিয়ে পড়া মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে কাজ করে যাচ্ছে –এমপি কেয়া চৌধুরী

সিলেট ও হবিগঞ্জের সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী সিলেটের বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে অনুদানের চেক বিতরণ করেছেন।
বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট জেলা পরিষদ সভাকক্ষে শেখ হাসিনা সরকারের পক্ষ থেকে বরাদ্দকৃত অনুদানের এ চেক সংশ্লিষ্টদের হাতে তুলে দেন।
এসময় কেয়া চৌধুরী এমপি বলেন- বর্তমান সরকার তৃণমূলের উন্নয়নে বিশ্বাসী। এ লক্ষ্যেই তৃণমূল পর্যায়ের বিভিন্ন সংগঠনকে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হচ্ছে। তিনি বলেন- সরকার পিছিয়ে পড়া মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে কাজ করে যাচ্ছে। এজন্য সরকারের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
দেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূলে তিনি নতুন প্রজন্মের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার উপরও গুরুত্বারোপ করেন।
সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও একে এম কামরুজ্জামান মাসুমের পরিচালনায় চেক বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এজেড রওশন জেবীন রুবা, বর্ডার গার্ড স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফয়জুল হক, প্রেসক্লাব ফাউন্ডেশনের সভাপতি আল আজাদ, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম নবেল, বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া সংস্থার নেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন প্রমুখ।
যেসব সংগঠনের হাতে কেয়া চৌধুরী এমপি অনুদানের চেক তুলে দেন সেগুলো হলো- সিলেট জেলা প্রেসক্লাব (এক লাখ টাকা), জয়ধ্বনি সামাজিক সংগঠন (৫০ হাজার টাকা), বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া সংস্থা (৫০ হাজার টাকা), পারমিতা সাহিত্য সংগঠন (৫০ হাজার টাকা), ইসকন মন্দির ইয়ূথ গ্রুপ (৫০ হাজার টাকা), পরিবেশ ও হাওড় উন্নয়ন সংস্থা উন্নয়ন (৫০ হাজার টাকা), বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ সিলেট সমিতি (১ লাখ টাকা), মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগার (৫০ হাজার টাকা), সিলেট সরকারী বাকশ্রবণ প্রতিবন্ধি বিদ্যালয় (১ লাখ টাকা), সদর উপজেলার ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তা সাদ বিউটি পার্লার এন্ড ট্রেনিং সেন্টার (৫০ হাজার টাকা), সদর উপজেলার ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তা নীলাঞ্জনা বুটিকস (৫০ হাজার টাকা), সদর উপজোর ক্ষুদ্র নারী উদ্যাক্তা কুমিল্লা পিঠাঘর (৫০ হাজার টাকা), সুরমা পাড়ের গান সংগঠন (৫০ হাজার টাকা), বাউল আব্দুর রহমান সংগীতালয় (৫০ হাজার টাকা), হাজী কছির মিয়া জামে মসজিদ শেখঘাট (৫০ হাজার টাকা), বর্ডারগার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ (১ লক্ষ  ৫০ হাজার টাকা), সিলেট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন (৫০ হাজার টাকা) ও অনির্বান ক্রীড়া সংস্থা (২৫ হাজার টাকা)।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল