সরকার বিতর্কিত নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে: রিজভী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সরকার বিতর্কিত নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে: রিজভী

প্রকাশিত: ৬:৪২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৮

সরকার বিতর্কিত নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার গণগ্রেফতার চালিয়ে পরিকল্পিতভাবে ভিন্ন কৌশলে আরেকটি বিতর্কিত নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে।
আজ শুক্রবার সকালে নয়াপল্টনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব  কথা বলেন তিনি।
রিজভী বলেন, সরকার ভিন্ন কৌশলে নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে। কারণ ভোটারবিহীন সরকার ক্ষমতার মগডালে বসে থাকার মজাটা পাচ্ছে, তাই তারা নাছোড়বান্দার মতো ক্ষমতা ধরে রাখতে আগ্রহী।
রিজভী আরো বলেন, আগামীকাল শনিবার রাজধানীর খিলক্ষেতে হোটেল লা মেরিডিয়ান-এ সকাল ১০টা থেকে বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ইতোমধ্যে নির্বাহী কমিটির সভার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাহী কমিটির সম্মানিত সদস্যদের মাঝে গতকাল থেকে পরিচয় পত্র বিতরণ শুরু হয়েছে।
আজকেও সারাদিন নির্বাহী কমিটির কর্মকর্তা ও সদস্যদের মাঝে পরিচয় পত্র বিতরণ করা হবে। সভাস্থলে নির্বাহী কমিটির কর্মকর্তা ও সদস্যদের রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে সকাল ৮-৩০টা থেকে।
রিজভী অভিযোগ করে বলেন, তবে আমরা এমন এক অন্ধকারাচ্ছন্ন দুঃসময়ের মধ্যে বাস করছি যে, যখন স্বাভাবিক রাজনৈতিক সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড করতে যেয়েও বিএনপি নেতৃবৃন্দরা সরকারি নিষ্পেষণের শিকার হচ্ছেন। বিপদ, শঙ্কা, আতঙ্ক ও ভয়ের মধ্যে তাদেরকে যাপন করতে হচ্ছে দিনরাত্রি। নির্বাহী কমিটির কর্মকর্তা ও সদস্যরা নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পরিচয় পত্র সংগ্রহ করতে এসে অনেকেই গ্রেফতার হচ্ছেন। বাসা থেকেও নেতৃবৃন্দরা গ্রেফতার হচ্ছেন। বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে গ্রেফতার করা যেন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পুতুল-খেলা। যখন ইচ্ছা হচ্ছে বাসা থেকে, রাস্তা থেকে, হাটবাজার থেকে, দলীয় কার্যালয় থেকে তাদের তুলে নিয়ে গিয়ে প্রথমে অস্বীকার করার পর দরকষাকষি শুরু হয়, বলা হয় বেশি টাকা দিলে হালকা মামলা দেয়া হবে, আর কম টাকা দিলে কঠিন মামলা দেয়া হবে, আর যদি অর্থ দিতে অক্ষম হয় তাহলে শুরু হয় অমানবিক শারীরিক নির্যাতন। এটিই হচ্ছে আওয়ামী লীগের গণতন্ত্র ও শাসনের নমূনা। গুন্ডামীর এই নবসংস্করণ ভোটারবিহীন সরকারের দুঃশাসন টিকিয়ে রাখার ইঙ্গিতবহ। গণতন্ত্রের অন্তেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করার সহিংস আগ্রাসী পদক্ষেপ।
তিনি বলেন, গতকাল দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মশিউর রহমান বিপ্লব পরিচয় পত্র সংগ্রহ করে বেরিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বিপ্লবের হার্টে অনেকগুলো রিং বসানো আছে। কিছুক্ষণ আগে আমরা সংবাদ পেলাম হৃদযন্ত্রে প্রচন্ড বেদনা অনুভব করলে তাকে হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। কিন্তু আইন শৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাকর্মীদের শারীরিক অসুস্থতা এসব কিছুই বিবেচনায় না নিয়ে আদিম প্রতিশোধপরায়ণতার মনোবৃত্তি নিয়ে নির্লজ্জ বেপরোয়াভাবে কাজ করছে।