সার্চ কমিটি সফল হয়নি : আকবর আলি খান – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সার্চ কমিটি সফল হয়নি : আকবর আলি খান

প্রকাশিত: ৬:৩২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৭

সার্চ কমিটি সফল হয়নি : আকবর আলি খান

নিজস্ব প্রতিবেদক: সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা আকবর আলি খান বলেছেন, গত ১০ বছরে একটা সার্চ কমিটিও এমন কোনো নাম দিতে পারেনি, যেখান থেকে কমিশনে এমন কোনো সফল ব্যক্তিত্ব এসেছেন। যাঁদের আসা সম্ভব ছিল, তাঁদের নাম সার্চ কমিটি দিতে পারেনি। তাই সার্চ কমিটি এখনো সফল হয়নি।

শনিবার সকালে ‘ইউসিবি পাবলিক পার্লামেন্ট ২০১৭’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। বেসরকারি টেলিভিশন এটিএন বাংলা ও ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক যৌথভাবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থায় (এফডিসি) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

আকবর আলি খান বলেন, নির্বাচন কমিশনে এমন লোককে দেওয়া উচিত, যাঁরা কোনো রাজনৈতিক দলের কিংবা তার অঙ্গ-সংগঠনের সদস্য ছিলেন না। নির্বাচন কমিশনে এমন লোককে দেওয়া উচিৎ, যাঁদের অভিজ্ঞতা আছে। এমন লোককে দেওয়া উচিত, যাঁকে নিয়ে কোনো বিতর্ক নেই। যদি তিনি কোনো লোকের কাছে গ্রহণযোগ্য না হন, তাঁকে দেওয়া হবে না। এটা ব্যক্তির প্রতি বিচার করার বিষয় নয়, এটা নির্বাচন করার জন্য।

অর্থনীতিবিদ আকবর আলি খান বলেন, নির্বাচন কমিশনের জন্য সার্চ কমিটিকে ১০ দিনের সময় দেওয়া হয়েছিল। তারা বিভিন্ন দল থেকে প্রার্থীর নাম নিয়ে তাদের পছন্দমতো নাম বাছাই করেছে। কিন্তু এত সহজে ১০ দিনের লোকের তালিকা দেখে বাছাই করা সম্ভব নয়।

আকবর আলী খান বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে কি হবে না, তা রাজনৈতিক দল সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এ সিদ্ধান্ত জনগণের হাতে ছেড়ে দিতে হবে। গণভোটের মাধ্যমে জনগণ এ সিদ্ধান্ত দিতে পারে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে গণভোট গণতন্ত্রের পক্ষে শক্তিশালী হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে এ দেশে গণভোট শক্তিশালী করার জন্য দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতির পরিবর্তন ঘটাতে হবে। যে দেশে রাজনৈতিক দলগুলো বিবাদে লিপ্ত থাকে, একে অপরকে অভদ্র ভাষায় গালিগালাজ করে এবং কথায় কথায় শোধ নেওয়ার চেষ্টা করে, সে দেশে গণতন্ত্র শক্তিশালী হওয়া সম্ভব নয়।

অনুষ্ঠানে ছায়া বিতর্কের বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছিল ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচনকালীন সরকার নয়, বর্তমান সরকারই যথেষ্ট’। এতে সরকার দলের হয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও বেসরকারি দলের হয়ে অংশ নেন সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বিতর্কে সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতার্কিকেরা জয়ী হন।

ছায়া বিতর্কে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাবনা ক্যাডেট কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আবু মোহাম্মদ রইস, উন্নয়ন যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ এস এম মোর্শেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস এবং দৈনিক ইত্তেফাকের কূটনৈতিক সম্পাদক মাঈনুল আলম। বিতর্কে মক স্পিকার হিসেবে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বিতার্কিকদের সংগঠন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল