সিলেটের বিশ্বনাথের সন্তান জেনারেল নাঈম ও অপারেশন থান্ডারবোল্ট – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিলেটের বিশ্বনাথের সন্তান জেনারেল নাঈম ও অপারেশন থান্ডারবোল্ট

প্রকাশিত: ৩:০২ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩, ২০১৬

সিলেটের  বিশ্বনাথের সন্তান জেনারেল নাঈম ও অপারেশন থান্ডারবোল্ট

13567249_1043582322346265_2359931750269794885_nসিলেটের এক আলোকিত জনপদ বিশ্বনাথ । নিজস্ব ইতিহাস ও ঐতিহ্যে আজ এ জনপদ বেশ সমৃদ্ধ । শত শত
বছরের ঐতিহ্যবাহী এ জনপদে জন্ম হয়েছে অসংখ্য আলোকিত সন্তানের । যাদের জন্য এলাকাবাসী গর্বিত । তাদেরই একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক চৌধুরী । বিশ্বনাথের এই কৃতিসন্তান উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের দিঘলী গ্রামের কৃতিসন্তান অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও সরকারী কর্মকর্তা মরহুম আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী ও ডাঃ আক্তারুন নেছার ৭ম পুত্র তিনি। যিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদে কর্মরত। গুলশানের রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলায় ২০ জন নিহত হয়েছে, বলে নিশ্চিত করেছে আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ অধিদপ্তর বা আইএসপিআর।

গতকাল এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মিলিটারি অপারেশনন্সের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক চৌধুরী বলেন, জিম্মি উদ্ধারে শনিবার অভিযান শেষে ওই রেস্তোরাঁর ভেতরে ২০টি মৃতদেহ পাওয়া গেছে।
জিম্মি করার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাতেই তাদের হত্যা করা হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক বলেন, অভিযানকারীরা ভেতরে ঢোকার পর ২০ জনের মৃতদেহ পায়। এছাড়াও অভিযানে ৬ জন হামলাকারী নিহত হয়েছে এবং একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি। এ ছাড়া গতকাল রাতে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন।
সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে ঐ অভিযানটির নাম দেয়া হয়েছে অপারেশন থান্ডারবোল্ট। সেনা কমান্ডোরা ছাড়াও নৌ, পুলিশ, বিজিবি এবং র্যাবের সদস্যরা অংশ নেন। গুলশানের হোলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলা এবং জিম্মি সংকটের প্রায় ১১ ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে সাতটার পর কমান্ডো অভিযান শুরু হয়। আইএসপিআর বলছে, অভিযানে ১৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।রেস্টুরেন্ট থেকে উদ্ধারকৃতদের মধ্যে এক জন জাপানী এবং দুই জন শ্রীলংকান নাগরিক রয়েছেন।

গতকাল দেশের ও আন্তর্জাতিক সকল মিডিয়ায়ই সেনাবাহিনীর এই মেধাবী ব্রিগেডিয়ার জেনারেলের বক্তব্য থেকে পুরো বিশ্ব জানতে পেরেছে গুলশান ট্রাজেডীর প্রকৃত ঘঠনা ।বিশ্বনাথের বা দেশের হয়ত অনেকেই জানেন না এই জেনারেলের বাড়ী কোথায় ? যিনি শৈশবের অনেকগুলি দিন মায়ের সাথে বিশ্বনাথের দিঘলী গ্রামে কাটিয়েছেন এবং স্থানীয় দিঘলী প্রাথমিক বিদ্যালয়েই তার প্রাথমিক শিক্ষার হাতেখড়ি ।
দেশের যে কোন ক্রান্তিলগ্নে বিশ্বনাথের এই কৃতিসন্তান দেশপ্রেমে উদ্ভোদ্ধ হয়ে মাতৃভূমির প্রয়োজনে সাহসী ভূমিকা রেখে তার পিতৃভূমির মানুষকে বিশ্ব দরবারে আরো বেশী সম্মানিত করবেন এর সাথে তিনি ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন ও নিরাপদে থাকুন সেই প্রত্যাশা সমস্ত বিশ্বনাথবাসীর।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল