সিলেটে ৪ দিনেই ৩ নৃশংস হত্যাকান্ড – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিলেটে ৪ দিনেই ৩ নৃশংস হত্যাকান্ড

প্রকাশিত: ৪:২৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০১৬

সিলেটে ৪ দিনেই  ৩ নৃশংস হত্যাকান্ড

sangbad big২১ আগস্ট ২০১৬, রবিবার: সিলেটে খুনের রথ যেনো থামছে না। মাত্র চার দিনের ব্যবধানে সংঘটিত হয়েছে তিন তিনটি নৃশংস হত্যাকান্ড। এরমধ্যে সর্বশেষ শনিবার রাত ১১ টার দিকে খুন হয়েছেন স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা তাজুল ইসলাম। পূর্ব শত্রুতার জেরেই তাকে খুন করা হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে। আর বাকি দু’টি খুনের ঘটনা ঘটেছে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাকবিতান্ডের কারণে।

তিন খুনের মধ্যে দু’টিতে এখন পর্যন্ত কোন আসামী বা অভিযুক্ত গ্রেফতার করা হয়েছে ৬ জনকে। পুলিশ বলছে তারা বাকি আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে। শুধুমাত্র তাজুল খুনের ঘটনায় গুলজার ও দুলাল সহ ৫ জন গ্রেফতার আর ব্যবসায়ী করিম বক্রাস মামুন হত্যা মোটরসাইকেল সহ ১ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে পুলিশের দাবী।

সিলেটের জিন্দাবাজারে ব্যবসায়ী করিম বক্রা মামুন হত্যাকান্ড:
নগরীর জিন্দাবাজারে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে আহত ব্যবহায়ী করিম বক্রা মামুন আহমদের (২২) মৃত্যৃ হয় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যৃবরণ করেন বলে জানিয়েছেন তার ভাই ঈশান আহমদ। মামুন আহমদ জিন্দাবাজারের এ্যালিগেন্ট শপিং সিটির মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী। মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে মোটরসাইকেল পার্কিং নিয়ে বাকবিতন্ডার জেরে মামুন ছুরিকাঘাতের শিকার হন। জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সহ-সভাপতি সুলেমান চৌধুরীর নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীর থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। রাত ৩টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালেই তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

লালাবাজারে ব্রিজে আজিজ মিয়া হত্যাকান্ড:
দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লালাবাজারে সন্ত্রাসী হামলায় মো. আজির মিয়া (৪৫) নামের এক ফার্মেসী ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয় শুক্রবার রাত সাড়ে দশটার দিকে লালাবাজার ব্রিজে বাড়ি ফিরার পথে হামলার শিকার হন তিনি। আজির বিশ্বনাথ উপজেলার টেংরা গ্রামের মৃত মোফাচ্ছর আলীর ছেলে। এ ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় ব্যবসায়ী ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। প্রায় তিন ঘন্টা অবরোধ চলার পর রাত পৌণে ২টার দিকে পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেন ব্যবসায়ীরা। শনিবার বাদ আসর গ্রামের বাড়িতে জানাযার নামাজ শেষে তাকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, আজির উদ্দিনের ফার্মেসীর ডা. নাদির হোসেন চৌধুরীর কারের সাথে গত বুধবার রাতে স্থানীয় ভরাউটা গ্রামের আল ইছলাহ নেতা আজাদের প্রাইভেট কারের ধাক্কা লাগে। এ নিয়ে আজির উদ্দিনের সাথে আজাদের বাকবিতন্ডা হয়। রোববার বিষয়টি সমাধানের দিনক্ষণ নির্ধারিত ছিল। শুক্রবার বাড়ী ফিরার পথে লালাবাজার সেতুতে হামলা করা হয় আজিরকে। এ হামলার সাথে আজাদ, তার ভাই ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ, সহযোগী সাইফুলসহ আরো কয়েকজন মিলে আজির উদ্দিনের উপর হামলার সাথে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আজির উদ্দিনকে উদ্ধার করলেও এর আগেই তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

কুয়ারপাড়ের তাজুল ইসলাম হত্যা:
নগরীর কুয়ারপাড়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর শাহানা বেগম শানুর স্বামী ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা তাজুল ইসলাম খুন হন। শনিবার দিবাগত রাত সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালের তার মৃত্যু হয়। এর আগে বাসায় ফেরার পথে মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবক তাকে কুপিয়ে গুরতর আহত অবস্থায় রাস্তায় ফেলে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান- শনিবার রাত ১০টার দিকে বাসায় ফিরার পথে কুয়ারপাড় গরম দেওয়ান মাজারের সামনে মোটর সাইকেল (সিলেট এ-৬৮৮৭) আরোহী তিন যুবক তাজুলকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রাস্তায় ফেলে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে রাত দিকে অপারেশন থিয়েটারেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তাজুল। মাস কয়েক আগে তাজুলের ছেলে রায়হান ইসলামকেও সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল