সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে টাকা হলে সব মিলে – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে টাকা হলে সব মিলে

প্রকাশিত: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৬

সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে টাকা হলে সব মিলে

নিজস্ব প্রতিবদেক: সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। বৃহত্তর সিলেটের সকল শ্রেনী পেশার মানুষের চিকিৎসা সেবার একমাত্র সরকারী স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্টান। সিলেট জেলার অসুস্থ গরীব দুঃখী মানুষের একটাই শেষ আশ্রয়স্থল এ হাসপাতালটি।সিলেট জেলার নানা প্রান্ত থেকে এখানে মানুষ আসে চিকিৎসা নিতে, অথচ রোগীরা এখানে এসে বিভিন্ন ধরণের সমস্যা ও হয়রানির শিকার হতে হয়। সিট খালি থাকলেও রোগীদের আশ্রয় নিতে হয় নিচের ফ্লোরে । কিন্তু ঘুষ দিলে সিট পাওয়া এবং তড়িৎ গতিতে চিকিৎসাও পাওয়া যায়। সরজমিনে ৩ তলার ১১ নাম্বার ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় রোগীদের আত্মচিৎকার, ডাক্তার এবং নার্সদের অবহেলার মধ্য দিয়েই চলছে তাদের চিকিৎসা। পাশেই খালি সিট পড়ে আছে অথচ গরীব রোগীদের কপালে তা জুটছেনা, তবে দুই একজন রোগীর সাথে কথা বলে জানতে পারলাম, হাসপাতালের ওয়ার্ড বয়কে ১০০০/৫০০ টাকা দিতে পারলে পাওয়া যাবে সিট। আরো কয়েকজন রোগীর সাথে কথা বলে জানা যায় এই সব ওয়ার্ড বয়,এরাই নাকি এখানে ডাক্তারদের থেকেও বড়।এদের কথামতই রোগীদের চলতে হয়।এক্সিডেন্টের রোগীকে নিয়ে সমস্যায় সম্মুখীন হওয়া স্বেচ্ছাসেবী আরাফাত হোসেন রাহেল এই প্রতিবেদককে জানান, হাসপাতালের পর্যাপ্ত সিট খালি থাকা সত্তে এই এক্সিডেন্টের রোগীদের ফ্লোরে থাকতে হচ্ছে।সিটের কথা বলতেই বলা হয় সিটের প্রয়োজন হলে ইমারজেন্সি বিভাগে ২২০০ টাকা দিয়ে সিট কিনে নিতে পারেন।তিনি আরো বলেন আমরা সমস্ত স্বেচ্ছাসেবীরা রোগীদের রক্ত দান করে জীবন বাঁচানোর চেষ্টা করছি,আর এই সরকারী হাসপাতালে রোগীরা অবহেলা অনাদরে ধোঁকে ধোঁকে মরছে।এসব দৃশ্য দেখে খুবি মর্মাহত হই।সিলেট ওসমানী মেডিকেলের এসব সমস্যা সমাধানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন ভুক্তভোগীরা। ভূক্তভোগীরা

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল