সিলেট ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের কিছু কথা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিলেট ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের কিছু কথা

প্রকাশিত: ১২:১৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৬

সিলেট ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের কিছু কথা

nachon-jcd১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬, বৃহস্পতিবার: সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে কেন্দ্রীয় সংসদ ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম নাচনের ফেইসবুক পোষ্ট

 

দক্ষিন এশিয়ার সর্ববৃহৎ ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। এটি কোনো জংগী বা নিষিদ্ধ সংঘটন নয়..যে গোপনে তাদের কার্যক্রম চালাবে বা কোনো ইউনিট এর কমিটি গোপনে প্রধান করবে। বিগত কয়েকদিন ধরে অন-লাইনে বিশেষ করে ফেইসবুক এ “গোপন সূত্রে প্রাপ্ত” উল্লেখ করে ছাত্রদল সিলেট জেলা ও মহানগর কমিটির প্রায় সাড়ে সাতশ জনের একটি মনগড়া তালিকা কে বা, কারা অনলাইনে প্রকাশ করে।
এই তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, সমাজের চিন্নিত কিছু অপরাধী যাদের জন সম্মুখে আসার মতো কোনো পরিচয় ছিলনা, এরকম প্রায় শতাধিক অপরাধি, শিদেল চুর থেকে শুরু করে পকেটমার , ডাকাতি বা ছিনতাই ঘটনায় হাতে না হাতে গণধোলাই খেয়ে গ্রেফতার হওয়া, তালিকাভুক্ত ছিনতাইকারী-ডাকাত, মাদক সেবি থেকে শুরু করে মাদক বিক্রেতা, প্রায় অর্ধশত সাজা প্রাপ্ত আসামি নিজেদের পদ উল্লেখ করে।
শহিদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারুন্যের অহংকার তারেক রহমান এর ছবির সাথে নিজের ছবি দিয়ে পোস্টার ছাপিয়ে, জিয়া পরিবার, ছাত্রদল তথা গোটা বি.এন.পি কে কলোষিত করছে।
আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। তথাকথিত এই তালিকায় এক সময় শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত, নামে-বেনামে প্রায় অর্ধ-শতাধিক ব্যক্তির নাম রয়েছে।

এছাড়াও সাড়ে সাতশ জনের এই তালিকার অধিকাংশ নাম-ই নেতা-কর্মীদের কাছে অপরিচিত..টাকার বিনিময়ে তালিকায় নাম দেওয়া হয়েছে, এটা যে কেউ ধারনা করতেই পারে।
সব চেয়ে বেশী অনিয়ম করা হয়েছে জুনিয়রিটি-সিনিয়রিটি মেইনটেইন নিয়ে..যেটা বুমেরাং হয়ে যে কোনো সময় বড় ধরনের সংঘাত এর কারণ হয়ে দাড়াতে পারে…।
আমি মনে করি, দলের মধ্যে বিবেদ সৃষ্টির লক্ষ্যেই এরকম মনগড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে । দলের প্রতি সামান্যতম দরদ বা কমিটম্যান্ট যার রয়েছে, সে কখনোই এরকম তালিকা করতে পারে না।
অবশ্য এই তালিকাটি যে সঠিক নয়, তা ইতিমধ্যেই জেলা ও মহানগরের দায়িত্তপ্রাপ্তরা বিবৃতি দিয়ে সবাইকে অবহিত করেছেন। তাই এই ভুয়া তালিকা নিয়ে নিজেদের মধ্যে বিরোধ বা মনোমালিন্যে না জড়াতে ছাত্রদল নেতাকর্মী দের প্রতি অনুরোধ রইল।
এই তালিকায় অনেক যোগ্য ছাত্রনেতাদের নাম রয়েছে, নবীন ও প্রবীন এসব ছাত্রনেতাদের অনেকেরই যোগ্যতা রয়েছে সিলেট ছাত্রদল কে নেতৃত্ব দেওয়ার..কিন্তু বিতর্কিত এই সব নামের সাথে ত্যাগী, মেধাবী ও আন্দোলন সংগ্রামের পরিক্ষিত ছাত্রদলের গর্ব এসব ছাত্রনেতাদের ইমেজ ও জনপ্রিয়তা কে অনেকটাই মলিন করে দিতে পারে তালিকার এই সব বিতর্কিত নাম গুলো।

পরিশেষে যেটা বলতে চাই, বিতর্কিত এই কমিটির মেয়াদ শেষ হচ্ছে আর মাত্র ২ দিন পর(১৭ই সেপ্টেম্বর), তাই এখন কমিটি পূর্ণাঙ্গ এর চিন্তা বাদ দিয়ে, অতিশীঘ্র কিভাবে মেধাবী, তরুন ও সাহসী ছাত্রনেতাদের দিয়ে নতুন কমিটি গঠন করা যায়..সেই লক্ষ্যেই আমাদের এগিয়ে যাওয়া উচিৎ।

বি:দ্র: এই তালিকা বা যে কোনো তালিকায় পদ প্রাপ্ত কেউই দয়া করে আপনাদের পোষ্টার বা ফেস্টুনে আমার ছবি বা নাম ব্যবহার না করার জন্য বিনিত অনুরোধ করছি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল