সিলেট মহানগর ছাত্রদলের পোস্টমর্টেম – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিলেট মহানগর ছাত্রদলের পোস্টমর্টেম

প্রকাশিত: ২:০৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৬

সিলেট মহানগর ছাত্রদলের পোস্টমর্টেম

sylhet-jcdddddddচৌধুরী মুমতাজ আহমদ, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬, শুক্রবার: পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার প্রায় মাস পেরিয়ে গেলেও সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে ক্ষোভ-অসন্তোষ কমছে না। বিশাল একটি কমিটি পাওয়ার পরও নেতাকর্মীদের মন ভরেনি। এখন বিপদ হয়েছে নেতার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায়। জেলা কমিটির পাশাপাশি গত ৮ই সেপ্টেম্বর কেন্দ্র থেকে অনুমোদন হয়ে আসে সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটিও। মহানগর ছাত্রদলের কমিটিতে জায়গা হয় সর্বমোট ৪৩০ জনের। নেতাদের এমন মিছিলে এখন ছাত্রদলে কর্মী পাওয়াই দুষ্কর হয়ে পড়েছে। তাও যেই সেই নেতা নন ভারি ভারি পদ প্রায় সকলের পকেটেই। জেলার মতো অবশ্য অবমূল্যায়নের তেমন অভিযোগ নেই মহানগরের কমিটির বিরুদ্ধে। তবে ক্লিন ইমেজের সংকট আছে বেশির ভাগেরই। উপরের সারির বেশির ভাগই বয়সসীমা পেরিয়ে অনেক আগেই ঘর-সংসারী হয়েছেন। ছাত্রদল সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মানবজমিন পোস্টমর্টেম করেছে সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটি। উৎসুক পাঠকের জন্য তারই বিস্তারিত তুলে ধরা হলো।
মহানগর কমিটিতে অভিযোগের শুরু ২ নম্বর থেকেই। সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহফুজুল করিম জেহিন স্থায়ীভাবে যুক্তরাষ্ট্রে বাস করছেন অনেক দিন ধরেই, সহ-সভাপতি সাহেদ আহমদ চমনের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ। জয়নাল আহমদ কোনো দিন স্কুলের বারান্দাও মাড়াননি। আবদুল ওয়াহাব কাইয়ূম প্রবাসী। হরিদাস পাল, বেলাল আহমদ, সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদের বিরুদ্ধে নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। মামুন ইবনে রাজ্জাক রাসেলও একই তালিকায়। এইচ রহমান হাবিব যুক্তরাজ্যপ্রবাসী। আবু হানিফ পরিবহন সংস্থায় কাজ করেন। যুগ্ম সম্পাদকের মধ্যে আজিজ হোসেন আজিজ। লিটন কুমার দাস। মুবিনুল হক রাহীর বিরুদ্ধে নানা অপরাধের অভিযোগ। উমেদুর রহমান উমেদ পরিবহনে কাজ করেন।
সহ-সম্পাদকের মধ্যে এমদাদুর রহমানের বিরুদ্ধে সকল অভিযোগই আছে। জুবেদ আহমদ আমিরী দীর্ঘদিন ধরে কুয়েত প্রবাসী। ওসমান গণির বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আছে।
সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের মধ্যে টিটন মল্লিক ও এইচ এম ইকবাল দুজনেই জাতীয় পার্টির নেতা আবদুল্লাহ সিদ্দিকীর ছেলে মেহরান সিদ্দিকী সজীব হত্যা মামলার আসামি। তোফায়েল আহমদ ও আবদুস সালাম টিপু দুজনেই সাবেক কাউন্সিলর শাহানা বেগম শানুর স্বামী তাজুল ইসলাম হত্যা মামলার আসামি।
যোগাযোগ সম্পাদক রাসেল আহমদ খান ৮ নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক। ছাত্রীবিষয়ক সম্পাদক শাহিদ আলম রেজা ও সহ ছাত্রীবিষয়ক সম্পাদক সাকলিন হককে কেউই চিনেন না।

সংবাদটি দৈনিক মানবজমিনে প্রকাশিত