সিলেটসহ ছাত্রদলের জেলা ও মহানগর পর্যায়ে আসছে নতুন চমক – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিলেটসহ ছাত্রদলের জেলা ও মহানগর পর্যায়ে আসছে নতুন চমক

প্রকাশিত: ৮:১৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১০, ২০১৭

সিলেটসহ ছাত্রদলের জেলা ও মহানগর পর্যায়ে আসছে নতুন চমক

স্টাফ রিপোর্টার:: জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কমিটিতে বয়সসীমা নির্ধারণের পাশাপাশি শিক্ষাগত যোগ্যতাকে গুরুত্ব দিয়ে কমিটি করার চিন্তা ভাবনা করছে দলটি। কেন্দ্রীয় ছাত্রদলে বেশিরভাগ শিক্ষিত থাকলেও জেলা-মহানগর পর্যায়ে এ বিষয়টি খুব বেশি গুরুত্ব দেয়া হতোনা। একারণে অতীতে কিছু কিছু জেলা ও মহানগর কমিটিতে অশিক্ষিত এবং অর্ধশিক্ষিতরাও স্থান পেয়েছেন ।এবার যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে অন্যান্য ছাত্র সংগঠণের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে সক্রিয়তার পাশাপাশি শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয়টিও নির্ধারণ করা হচ্ছে। ছাত্রদলের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের একাধিক সূত্র এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে।
সূত্র জানায় সাংগঠনিক কার্যক্রম এবং আন্দোলনের জন্য তরুণদের উপর ভরসা করছেন দলের নীতিনির্ধারকরা। এ কারণে জেলা ও মহানগর পর্যায়ে বয়স্কদের বাদ দিয়ে ২০০০ সালে এসএসসি পাশ করা কর্মীদের দিয়ে জেলা ও মহানগর কমিটি গঠণ করার চিন্তা ভাবনা করা হয়েছিল।তবে কিছুদিন পূর্বে একসাথে ২০ টি জেলা ইউনিটের কমিটি ঘোষনা করা হলেও সেসব কমিটিতে ৯৮/৯৯ সালে এসএসসি পাশ করা অনেকেই স্থান পেয়েছেন।তবে নবগঠিত ২০টি কমিটিতে শিক্ষিতদেরকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে।
জানা যায়,কিছু কিছু জায়গায় ২০০০ এসএসসি ব্যাচের যোগ্য নেতা না পাওয়ায় ৯৮/৯৯ সনে এস এসসি পাশ অবিবাহিতদেরকে কমিটিতে রাখা হয়েছে। অনেকে বাদ পড়ায় কিছুটা অসন্তোষ থাকলেও সার্বিক বিবেচনায় ভাল হয়েছে বলে মনে করে নেতাকর্মীরা।
আরো সুন্দর কমিটি এবং সুশৃঙ্খল সংগঠণ গড়ে তুলতে এবার শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয়টিও নির্ধারণ করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে জেলা ও মহানগর পর্যায়ে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক পাশ নির্ধারণ করা হচ্ছে। সহসভাপতি থেকে সম্পাদকীয় পদের জন্য ন্যূনতম এইচ এস সি পাশ নির্ধারণ করার সম্ভাবনা রয়েছে। ইতিমধ্যে এ বিষয়টি নিয়ে আলাপ আলোচনা চলছে। তবে কারো কারো মতে হঠাৎ করে বয়সসীমা কমিয়ে আনলে কিছু কিছু জেলায় যোগ্য নেতা পাওয়া নাও যেতে পারে তাই সেক্ষেত্রে ঐসব জেলায় ৯৮/৯৯ সনের এস এসসি পাশ ও অবিবাহিতদেরকে গুরুত্ব দেয়া হবে।
ছাত্রদল সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, সারাদেশের আরো প্রায় ৩০/৩৫ টি জেলা ইউনিটের কমিটি প্রক্রিয়াধীন। তবে এতে বেশিরভাগ জেলায় ২০০০ সালের এসএসসি ব্যাচের যোগ্য নেতা না পাওয়ায় কমিটি প্রস্তুত করতে বিলম্ব হচ্ছে। একারণে সাংগঠনিক দক্ষতা, ত্যাগ এবং আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে বয়সের বিষয়টি কিছুটা শিথিল করা হতে পারে। সেক্ষেত্রে ৯৮/৯৯ সালে এসএসসি পাশ করা অবিবাহিতদেরকে জেলা ও মহানগর পর্যায়ের শীর্ষ পদগুলোতে রাখার চিন্তা ভাবনা চলছে।
দলের নীতিনির্ধারক এবং সাবেক ছাত্রনেতাদের ধারণা এরকম একটি কাইটেরিয়া করা হলে শিক্ষিত ও তরুণরা উৎসাহিত হবে। পাশাপাশি বাদ পড়া নেতাকর্মীরা যুবদল – স্বেচ্ছাসেবকদলে সক্রিয় হলে এ দুটি অঙ্গ সংগঠণ শক্তিশালী হবে।
বর্তমানে একমাত্র ছাত্রদল ব্যতীত অন্য সকল ছাত্র সংগঠণে নিয়মিত ছাত্ররা নেতৃত্ব দিচ্ছে। এই উপলব্ধি থেকেই ছাত্রদলে বয়স এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয়টি নির্ধারণ করা হচ্ছে বলে ছাত্রদল সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক এক নেতা যিনি বর্তমানে ছাত্রদলের অন্যতম নীতিনির্ধারকের ভূমিকা পালন করছেন তার কাছে জানতে চাইলে বিষয়টি স্বীকার করে বলেন,শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয়টি নির্ধারণ করা সমোপযোগী সিদ্ধান্ত। এতে শিক্ষিত ছেলেরা ছাত্রদলের রাজনীতিতে অংশগ্রহণে উৎসাহী হবে। কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের একজন যুগ্ম সম্পাদক বলেন,আমি এ বিষয়টিকে স্বাগত জানাই। এটা আরো পূর্বে করলে আরো ভাল হতো।

কেন্দ্রীয় একটি সূত্র জানান প্রক্রিয়াধিন ৩০/৩৫ টি কমিটির মধ্যে সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটি রয়েছে। সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে চলছে আলাপ আলোচনা।সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ পড়–য়া ছাত্রদের গুরুত্ব দিয়ে কমিটি গঠন করা হবে। বিএনপির একটি সূত্র জানিয়েছে এ বছরের মধ্যেই বিএনপি সকল অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের কমিটি গঠনের কার্যক্রম শেষ করতে হবে। আগামী বছরের প্রথম দিক থেকে সরকার পতনের আন্দোলনের আবার সংক্রিয় হবে দলটি। সেই লক্ষ্যে নিয়ে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, কৃষক দল, শ্রমিক দল সহ বিএনপির অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কাজ করে যাচ্ছেন।

পড়–ন শীঘ্রই আসছে:

সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের কমিটি 

কাদের নেতৃত্বে আসছে সিলেট মহানগর ছাত্রদল

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল