সিসিক নির্বাচন! কে পাচ্ছেন কোন দলে মনোনয়ন? – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সিসিক নির্বাচন! কে পাচ্ছেন কোন দলে মনোনয়ন?

প্রকাশিত: ৩:৪৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০১৬

সিসিক নির্বাচন! কে পাচ্ছেন কোন দলে মনোনয়ন?

SSC picনাঈমুল ইসলাম নাঈম:  সিলেট সিটি কর্পোরেশনে- সিসিক (সাময়িক বরখাস্ত) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও হবিগঞ্জের মেয়র জি কে গৌছকে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের উপর গ্রেনেড হামলার মামলায় অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে। তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা ইতোমধ্যে আদালতে আবেদন করেছেন। যার ফলে আগামী দিনের সিসিক মেয়র নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন মেরুকরণ।
আওয়ামীলীগের তৃণমূল নেতা কর্মীরা সিলেট নগরীতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে এবং শুভেচ্ছা অভিনন্দনে আবাস দিচ্ছেন সিলেট মহানগর আওয়ামীলগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ’র পক্ষে। আওয়ামীলীগ থেকে সিটি কর্পোরশন নির্বাচনে মহানগর আওয়ামীলগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে নেতাকর্মীরা আশা করেন। তবে মননোয়ন পেতে মাঠে রয়েছেন আরেক শক্তিশালী প্রার্থী। সাবেক ২ বারের মেয়র মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। সিলেট জেলা পরিষদের প্রশাসক নিয়োগের পর আওয়ামীলীগের ২টি স্থান পুরণে বাকি রয়েছে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিসিক মেয়রের মনোনয়ান পদ। তবে স্থানীয় নেতৃবৃন্দর ধারনা মেয়র মনোনয়নের সোনার হরিণটি মহানগর আওয়ামীলগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ হাতে।
বিএনপির সমর্থকরা আশা করেছিলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী কিবরিয়া হত্যা মামলায় কারান্তরিণ আরিফুল হক চৌধুরী নির্দোষ প্রমানিত হয়ে বেরিয়ে আসবেন। বর্তমান অবস্থায় এটি আর সম্ভব না ও হতে পারে। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আগামী নির্বাচনে মেয়র পদে কোন নেতাকে প্রার্থী করা যায় তা নিয়ে শুরু হয়েছে আলাপ-আলোচনা। দলীয় আলোচনায় রয়েছেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সিলেট মহানগর বিএনপির বিপুল ভোটে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম।
দলের তূণমূল নেতৃবৃন্দের ধারনা বিএনপি নির্বাচনে গেলে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমের বিকল্প নেই। তিনি দলের দূর্দিনে বিএনপির হাল ধরেছেন এবং ৯০’র স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে রাজপথে সাহসী নেতৃত্ব দিয়ে এসেছেন।
মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন নাম প্রকাশ করে অনলাইন ও জাতীয় দৈনিক পত্রিকা সংবাদ পরিবেশন করলে তিনি বিবৃতি পাঠিয়ে নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসাবে প্রকাশ করা হয়েছে যা সম্পন্ন মিথ্যা ও বানোয়াট জানান । প্রকাশিত সংবাদ সম্পূর্ণ অসত্য ও ভিত্তিহীন। যে বা যাহারা দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য এ ধরনের সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে দলীয় সংবিধান অনুসারে পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান। আলোচনা রয়েছেন কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী।
সিলেট মহানগর জামায়াতের আমীর এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকে মেয়র প্রার্থী হিসাবে ছাত্র শিবির ও নগর জামায়াত প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে বেশ কিছু দিনযাবত।
সিলেট আওয়ামীলীগে মেয়র প্রার্থী নিয়ে খুব একটা মতপার্থক্য না থাকলেও দুটি নাম বার বার উচ্চারিত হচ্ছে। তারা হলেন সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। ইতোমধ্যে আসাদ আহমদের সমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এনিয়ে ব্যাপক হারে তাদের ইচ্ছা তোলে ধরছেন।
তবে জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম এগিয়ে রয়েছেন।
সিলেট জেলা জাপার সভাপতি আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী, মহানগর জাপার সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী আশরাফ উদ্দিন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল হাই কাইয়ুম মনোনয়ন পেতে মাঠে রয়েছেন।

সকল প্রার্থী থেকে এখনও সবার শীর্ষে। তাঁর ব্যক্তিগত আচরণ, বিপদে আপদে মানুষকে সহায়তা করা, মানুষের পাশে দাঁড়ানো, এই সব বৈশিষ্টের কারণে দল-মত নির্বিশেষে নগরবাসীর প্রিয় মানুষ তিনি। এ ক্ষেত্রে অবশ্য আওয়ামীলীগের দলীয় সিদ্ধান্তই নেতাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।
তাই পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নগরবাসীর প্রশ্ন- কে পাচ্ছেন দলী মনোনয়ন?

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল