স্মাইল লার্নিং সেন্টার বঞ্চিত মানুষদের আশার আলো হয়ে থাকব. অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

স্মাইল লার্নিং সেন্টার বঞ্চিত মানুষদের আশার আলো হয়ে থাকব. অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৮, ২০২০

স্মাইল লার্নিং সেন্টার বঞ্চিত মানুষদের আশার আলো হয়ে থাকব. অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র

অনলাইন ডেস্ক::
আর্তমানবতার কল্যাণে নিবেদিত হাজী আবদুস শহীদ ফাউন্ডেশনের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘স্মাইল লার্নিং সেন্টারের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ভবনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৩টায় দক্ষিণ সুরমার আলমপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে এই ভবনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সিলেট রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র। মোনাজাত পরিচালনা করেন আলমপুর জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা ফয়েজ আহমদ।
ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, সমাজে অনেক স্বচ্ছল ও বিত্তবান রয়েছেন যারা দরিদ্র প্রতিবেশীর জন্য কোন ভূমিকা রাখেন না। আমাদের সবাইকে আগে মানুষকে ভালবাসতে হবে। শুধুমাত্র নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকার নামই জীবন নয়। সেক্ষেত্রে স্মাইল লার্নিং সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল কুদ্দুস রুবেল মানব সেবার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তিনি বলেন, শিক্ষা, চিকিৎসা, কারিগরি প্রশিক্ষণ, কম্পিউটার শিক্ষা সহ সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কল্যাণে প্রতিষ্ঠিত স্মাইল লার্নিং সেন্টার প্রতিষ্ঠা একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এই প্রতিষ্ঠানটি হবে আলোকিত এক মানুষের গড়া অন্ধকারে বাতিঘর।
সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট ফুরুক আহমদের সভাপতিত্বে ও হাফিজ জুবায়ের আহমদের কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সূচিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, এসএমপির উপ পুলিশ কমিশনার তোফায়েল আহমদ, ডিআইজি রেঞ্জের পুলিশ সুপার (অর্থ ও প্রশাসন) নুরুল ইসলাম, সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও কাউন্সিলর আজম খান, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী মুজিবুল হক, সিলেট কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ওয়ালি উল্লাহ মোল্লা।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে স্মাইল লার্নিং সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা সিইও আব্দুল কুদ্দুস রুবেল বলেন, আমি সকলের সহযোগিতা নিয়ে সমাজের সুবিধা বঞ্চিত দরিদ্র অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই। আমি নিজের জন্য কিছু চাই না, মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে পারলে আমি নিজেকে ধন্য মনে করি। তাই আমরা সম্মিলিতভাবে এই প্রতিষ্ঠানটিকে এগিয়ে নিয়ে কাঙ্খিত লক্ষে পৌছাতে পারবো বলে বিশ্বাস করি। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন। সামগ্রীক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মো. শাহজাহান রহমান।
অনুষ্ঠানে অতিথিদের ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা প্রদান করা হয়। স্মাইল লার্নিং সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল কুদ্দুস ও হাজী আবদুস শহীদ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হাওয়ারুন নেছাকে ক্রেস্ট দিয়ে সম্মান জানানো হয়। স্মাইল লার্নিং সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন উপলক্ষে প্রীতি ক্রিকেট ও ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়। তাছাড়াও শতাধিক শীতার্ত মানুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়।