সৎ পুত্রের হামলায় গুরুতর আহত মায়া বেগম মারা গেছেন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

সৎ পুত্রের হামলায় গুরুতর আহত মায়া বেগম মারা গেছেন

প্রকাশিত: ২:২১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০২০

সৎ পুত্রের হামলায় গুরুতর আহত মায়া বেগম মারা গেছেন

শ্রীমঙ্গল সংবাদদাতা:

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে শ্রীমঙ্গলের ইসলামপুর সিন্ধুরখান গ্রামে সৎ পুত্রদের সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত সৎমা মায়া বেগম মারা গেছেন। শনিবার (১১ জানুয়ারি) ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় গত ১ ডিসেম্বর শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা দায়ের করেছিলেন নিহত মায়া বেগমের ছেলে জাফর আলী। মামলা নং- ১।

এতে তিনি অভিযোগ করেন, একই গ্রামের তার সৎ ভাই মৃত আকবর আলীর ছেলে আছিদ আলী, পারভীন বেগম, উমর আলী, দিলারা বেগম, আব্দুল আলী, শিউলী বেগম, জামিল মিয়া, শাকিল মিয়া ও তারেক মিয়া সহ অজ্ঞাতনামা ৬/৭ জন সন্ত্রাসী ২০১৯ সালের ১৫ নভেম্বর বিকাল পৌণে ৪টার দিকে তাদের বাসায় ঢুকে অতর্কিতভাবে জাফর আলী ও তার মা মায়া বেগমের উপর দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। তারা জাফর আলীকে বেধড়ক মারপিট করে এবং তার মা মায়া বেগমের মাথায় দা দিয়ে কুপ মারে।

এতে তিনি গুরুতর আহত হলে তাকে প্রথমে শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে এবং সর্বশেষ ২৬ ডিসেম্বর ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১১ জানুয়ারি সকাল ৮টায় তিনি মারা যান।

জাফর আলী জানান, পিতার মৃত্যুর পর তার পৈত্রিক সম্পত্তি দখল করে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেন সৎ ভাই ও বোনেরা। তারা কারনে অকারনে তাদের সাথে ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত হতেন ও মারধর করতেন। এরই ধারাবাহিকতায় সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে জাফর আলী ও তার মা মায়া বেগমকে গুরুতর আহত করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১১ জানুয়ারি মায়া বেগম মারা যান।

এ সুযোগে জাফর আলীর সৎ ভাইয়েরা তাদের বসত বাড়ি ও জমিজমা দখল করে নেয়। বর্তমানে তারা চরম নিরাপত্তাহীন ও অসহায় অবস্থায় জীবন যাপন করছেন। এর আগে ২০১৯ সালের ৯ ফেব্র“য়ারি সন্ত্রাসীরা জাফর আলীর ছোট ভাই হাসান মিয়াকে মারধর ও ছুরিকাঘাত করে গুরুতর আহত করে।

এ ঘটনার কয়েকদিন পর ২৫ ফেব্র“য়ারি হাসান মিয়া মারা যান। জাফর আলীর অভিযোগ, উভয় মামলার আসামীদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ঘটনাগুলোর অধিকতর তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরা অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)তে আবেদন করলেও এখন কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল