হাইকোর্টের রায় : সিলেটের সেইসব বনভূমি বন বিভাগের – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

হাইকোর্টের রায় : সিলেটের সেইসব বনভূমি বন বিভাগের

প্রকাশিত: ৪:৪১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০২০

হাইকোর্টের রায় : সিলেটের সেইসব বনভূমি বন বিভাগের

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটের জৈন্তাপুর ও গোয়াইন ঘাট এলাকার ভূমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত ১৯৮৫ সালের গেজেটের বৈধতা নিয়ে দুটি রিটে জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এই রায়ের ফলে ওই বনভূমি বন বিভাগের অধীনে থাকছে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ সাইফুজ্জামান, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল অবন্তী নূরুল ও রোকেয়া আক্তার। রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী চৌধুরী সানওয়ার আলী।

সোমবার (১৬ নভেম্বর) বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রায় দেন।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, রিট আবেদনকারীরা নিজেদের মহাজির দাবি করে হাইকোর্টে গেজেটের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। কিন্তু মামলার শুনানিকালে আবেদনকারীরা মহাজির প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় হাইকোর্ট রিট আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন।

রিট আবেদনে বলা হয়েছে, দেশ ভাগের পরে (১৯৪৮-৬৫) আসাম ও ত্রিপুরা থেকে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে অভিবাসী হিসেবে সিলেট অঞ্চলে তারা অবস্থান নেন। তখন তাদের পরিচিতির জন্য মহাজির কার্ড দেওয়া হয়। ১৯৫১ সালে তৎকালীন সরকার সিলেট অঞ্চলে তাদের জীবিকা নির্বাহ ও বসবাসের জন্য কিছু ভূমি বন্দোবস্ত দেয়।

কিন্তু ১৯৮৫ সালের ২০ আগস্ট সরকার বনায়নের লক্ষ্যে সিলেটের গোয়াইনঘাট ও জৈন্তাপুর উপজেলার ওই ভূমি বন বিভাগের অধীনে ন্যাস্ত করে। সরকারের জারিকৃত এই গেজেটের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ২০১২ সালে আব্দুল মোতালেব ওসমান আলী এবং এবং ২০১৪ সালে রফিকুল ইসলাম ও ফরমান আলীসহ অন্যরা দুটি রিট দায়ের করেন। পরে ওইসব রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট রুল জারি করেছিলেন। সোমবার যে রুল খারিজ করে দেন আদালত।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল