হাইলাকান্দি জেলার বিলাইপুরে স্ত্রীর দায়ের কোপে স্বামী নিহত – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

হাইলাকান্দি জেলার বিলাইপুরে স্ত্রীর দায়ের কোপে স্বামী নিহত

প্রকাশিত: ১০:৩০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৬, ২০২০

হাইলাকান্দি জেলার বিলাইপুরে স্ত্রীর দায়ের কোপে স্বামী নিহত

আসাম প্রতিনিধি 

স্বামী হত‍্যার অপরাধে গ্রেফতার হলো পত্নী।লোমহর্ষক হত‍্যা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে হাইলাকান্দি জেলাধীন লালা থানার অন্তর্গত বিলাইপুর গ্রামে।গত মঙ্গলবার গভীর রাতে এই ঘটনাটি ঘটেছে।খনু হওয়া ব‍্যক্তির নাম ধীরেন রায় (৪৫)। ঘাতক স্ত্রীর নাম অনিমা রায় (৩৫)। কন‍্যার নাম উষা রায় (১৫)। বর্তমানে পুলিশ হাজতে আটক আছেন উভয়েই।এ ঘটনা নিয়ে এলাকায় ব‍্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।প্রাপ্ত খবরে প্রকাশ, বিবাহের পর থেকেই অনিমা ও ধীরেন রায়ের মধ‍্যে সম্পর্ক ভালো ছিল না।সময়ের সাথে সাথেই তাদের ঘরে দুই কন্যা সহ এক পুত্র সন্তান জন্মায়।ধীরেন ঠিকমত তেমন সংসারের দায়িত্ব পিলনে সক্রিয় ছিল না।অভাবের সংসারে সর্বদা ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত।এর মধ‍্যে নিহত ধীরেন মদে আসক্ত থাকতো বলেও জানা যায়।জঙ্গল থেকে কাঠ সংগ্রহ করে পরিবারে মুখে অন্ন যোগান ছাড়া বিকল্প কিছু ছিল না।মাতাল অবস্থায় প্রতিদিন ঘরে ঢুকে স্ত্রী, পুত্র কন‍্যার উপর শারিরীক নিযার্তন চালাতো বলেও জানা গেছে।এরকম আর সহ‍্য করতে না পেরে এদিন গভীর রাতে মা ও বড় মেয়ে মিলে ধীরেন রায়কে গলা কেটে হত্যা করে ফেলেন।বুধবার সকালে আশপাশের লোকেরা বিষয়টি জেনে খবর দেয় বিলাইপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বিরেশ লালকে। তিনি লালা থানায় খবর জানান। এখান থেকে ওসি লিটন নাথ দলবল নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা মৃতদেহ উদ্ধার করে হাইলাকান্দি সিভিল হাসপাতালে প্রেরণ করেন ময়নাতদন্তের জন্য।তৎসঙ্গে স্ত্রী অনিমা রায় ও যুবতী কন‍্যা উষা রায়কে গ্রেফতার করে লালা থানায় নিয়ে যায়।লালা থানার ওসি লিটন নাথ জানান, এনিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা জমা পড়েনি।তবে মা ও মেয়ে মিলে ধীরেন রায়কে দা দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে।খুনের ব‍্যবহ্নত দা বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।বৃহস্পতিবার মা ও মেয়েকে আদালতে প্রেরণ করবেন বলে ওসি জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল