অবৈধ সুবিধা না দেয়ায় আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচেছ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

অবৈধ সুবিধা না দেয়ায় আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচেছ

প্রকাশিত: ১:৩৬ অপরাহ্ণ, জুন ২৯, ২০১৯

অবৈধ সুবিধা না দেয়ায় আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচেছ

গত মঙ্গলবার২৫ জুন ” দৈনিক সিলেটের দিনকাল” “আমার আইনে চলবে হাসপাতাল ” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করছি আমি কৈতক ২০ শয্যা হাসপাতাল,ছাতক, সুনামগন্জের আরএমও ডা. মোহাম্মদ মোজাহারুল ইসলাম। ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ উপস্থাপন করা হয়েছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা , বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে, গত শনিবার ২২ জুন/২০১৯ বিকাল ৩.৩০ মিনিটের সময় (অফিস কালীন সময় সকাল ৮ হতে দুপুর ২:৩০ ঘটিকা) স্থানীয় সাংবাদিক জুনাইদ আহমদ জৈনিক এক ব্যক্তিকে আমার কাছে নিয়ে আসেন। আমি উনার সাথে আলাপকালে পরিচয় জানতে চাই এবং চেয়ারে বসতে বলি। কিন্তু তিনি পরিচয় দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, তিনি পরিচয় দিতে বাধ্য নন এবং পরিচয় না দিয়েই হাসপাতালের ভিতরে ঢুকবেন এবং বিভিন্ন দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করবেন।কিন্তু আমি পরিচয়হীন উক্ত ব্যক্তিকে জনস্বার্থে হাসপাতালে ঢুকতে নিষেধ করি। এতে তিনি রেগে যান। তখন আমি স্হানীয় সাংবাদিক জনাব জুনেদ আহমেদের অনুরুধে উনাকে এই শর্তে হাসপাতালে প্রবেশের অনুমতি দেই যে, উক্ত পরিচয়হীন ব্যক্তি যেন কোন ক্রমেই মহিলা ওয়ার্ড এবং ডেলিভারি রুমের কোন ছবি না তোলেন। তাছাড়া বলি,এই প্রচন্ড গরেম, মহিলা ওয়ার্ডের মহিলা রোগিদের বিরক্ত করা ঠিক হবেনা। তাই গাইনি ওয়ার্ডে গেলে ক্যামেরা ছাড়া যেতে অনুরুধ করি। আপনারা নিশ্চই অবগত আছেন কোন হাসপাতালের গাইনী বিভাগে ক্যামেরা নিয়ে প্রবেশের কোনো নিয়ম নেই। সবারই মা-বোন আছে এই কথাটা চিন্তা করা দরকার। এই সময় তিনি রেগে গিয়ে আমার সাথে অসৌজন্যমূলক ও হুমকিমূলক আচরণ করেন । এসময় সঙ্গে থাকা স্থানীয় সাংবাদিক বলেন, তিনি সামস শামীম কালের কণ্ঠে কাজ করেন এবংসুনামগঞ্জের সংবাদদাতা। তখন আমার মনে পড়ে তিনি গত রমজান মাসে দঃ সুনামগন্জ উপজেলার আমার জৈনিক বন্ধুর মাধ্যমে আমাকে একটি অবৈধ প্রলোভন জানান, আর তা হলো উক্ত হাসপাতালের অন্তঃবিভাগে উনার শশুর বাড়ির আত্মীয় হিসেবে পরিচিত এক নার্সকে প্রাইভেট প্র্যাকটিসের মাধ্যমে অবৈধভাবে টাকা আয়ের সুযোগ করে দেওয়া। আমি উনার অবৈধ আবদারে রাজি না হওয়ায় তিনি আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। জনাব সামস সামিম ( কালের কন্ঠ জেলা প্রতিনিধিয) নিজ ফেইসবুক আইডি(২২ জুন) থেকে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার এবং মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করছেন। চিকিৎসা সেবা হচ্ছে সাধারণ মানুষের আস্থার স্থান। সেখানে কিভাবে আমি একজন নার্সকে প্রাইভেট প্র্যাকটিস করার অনুমতি দিয়ে অবৈধ আয়ের সুযোগ করে দিতে পারি?তাই ঐ কথিত সাংবাদিক নানাভাবে আমার ক্ষতি সাধনের জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন যা স্থানীয় অনেকেই অবগত আছেন।আমি এ ধরনের মিথ্যাচার ও অপপ্রচার থেকে বিরত থাকার জন্য সকলের প্রতি উদার্থ আহবান জানাচ্ছি।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল